সুন্দর একমাথা চুল সবারই কাম্য। কিন্তু নানা কারণে বর্তমানে অনেকেরই চুল ঝরে যাচ্ছে। অনেক সময় রোগী এসে জিজ্ঞেস করেন কী কারণে চুল পড়ে। আসলে এক কথায় এর জবাব হয় না। আবার একেকজনের একেক কারণে চুল ঝরে। সাধারণত হরমোনের তারতম্য, রক্তস্বল্পতা, যেকোনো অসুখের পর ও প্রসবের পরে। মানসিক চাপ ও অন্যান্য ওষুধের কারণে চুল পড়তে পারে।

বর্তমানে মানুষের জীবনযাত্রা ও কর্মব্যস্ততাও স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব ফেলে। আর এ থেকে চুল ঝরতে পারে। অনেকে বেশি রাত পর্যন্ত জেগে থাকেন। অতিরিক্ত ধূমপান এসবও চুল পড়ার কারণ হতে পারে। খাদ্যাভাস একটি বড় ব্যাপার। অতিরিক্ত ভাজাপোড়া, চা, কফি ও ফাস্ট ফুড, কার্বনেটেড ড্রিঙ্কস খাওয়ার মাত্রা বর্তমানে বেড়ে গেছে। শাকসবজি, ফল ইত্যাদি সহকারে সুষম খাদ্য গ্রহণে আগ্রহী নন। প্রতি বেলায় অন্তত একটি ফল বা সবজি খান এমন লোক খুঁজে যাওয়া কঠিন। অথচ শাকসবজি ও ফল নিয়মিত খাওয়া প্রয়োজন। এবার আসা যাক পানির কথায়। প্রতিদিন ১৬-২০ গ্লাস পানি পান করা প্রয়োজন। এ ব্যাপারে আমরা সচেতন নই।

চুলের সঠিক যত্ন সম্পর্কে না জানার কারণেও অনেকের চুল পড়ে। চুল পরিষ্কার রাখা একটি অপরিহার্য ব্যাপার। অথচ অনেকে বলেন, শ্যাম্পু করলে বেশি পড়ে। আসলে সঠিক শ্যাম্পু ব্যবহার না করলে এটি হতে পারে। এ ছাড়া চুল অতিরিক্ত ময়লা হলে, তা পরিষ্কার করতে গেলে চুল পড়বেই। চুলের জন্য সঠিক শ্যাম্পু নির্ধারণ করা জরুরি ব্যাপার। শহরের পরিবেশ দূষণের কারণে প্রয়োজন অনুযায়ী সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন শ্যাম্পু করা প্রয়োজন।

অনেকে চুল খুব ঘন ঘন আঁচড়ান। এটা ঠিক নয়। আবার চুল না আঁচড়ানোও ঠিক নয়। আর আঁচড়ানোর সময় প্রতিদিন গড়ে ১০০টি পর্যন্ত চুল পড়া স্বাভাবিক বলে ধরে নিতে হবে। চুল খুব টেনে বাঁধাও চুলের জন্য ক্ষতিকর। আবার বর্তমানে নানারকম ক্ষতিকর কেমিক্যাল, রঙ ও হিট দিয়ে চুলের নানা স্টাইল করা হয়। জেল, মুজ, হেয়ার ডাই­ এসব চুলের ক্ষতি করে। এ ছাড়া হিটে চুল নষ্ট হয়ে যায়। তাই কোনো ফ্যাশনের পেছনে ছুটে চুলের ক্ষতি করার আগে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন।

সঠিক খাদ্যাভ্যাস ও জীবনযাত্রা এবং সঠিক যত্নের মাধ্যমে চুলের যত্ন নেয়া প্রয়োজন। তবে অল্প রকমে খুব বেশি চুল পড়তে থাকলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া প্রয়োজন। চুল পড়তে থাকলে সতর্ক হোন। কারণ খুব বেশি চুল পড়ে মাথা ফাঁকা হয়ে গেলে চিকিৎসা করার সময়, ধৈর্য ও ব্যয়সাপেক্ষ। তবে আশার কথা হলো বর্তমানে যেসব ওষুধের মাধ্যমে চিকিৎসা করা হচ্ছে তার ভালো ফল পাওয়া যাচ্ছে। মুখে খাওয়ার ও মাথার ত্বকে ব্যবহার করার নানা ওষুধ প্রয়োগে বর্তমানে চুল পড়ার চিকিৎসা করা হচ্ছে।

**************************
ডা. ওয়ানাইজা
চেম্বারঃ জেনারেল মেডিক্যাল হাসপাতাল (প্রা.) লি., ১০৩, এলিফ্যান্ট রোড (তৃতীয় তলা), বাটা সিগন্যালের পশ্চিম দিকে, ঢাকা।
দৈনিক নয়া দিগন্ত, ১৯ অক্টোবর ২০০৮