আক্কেল দাঁত নামটির সাথে ছেলে বুড়ো কমবেশী সবাই পরিচিত। এই আক্কেল দাঁত আমাদের মুখে উপর-নিচ, ডানে-বামে মিলিয়ে মোট চারটি থাকে। আমাদের মুখে ২৮-২৫ বছর বয়সের মাঝে এই দাঁত আসে। আবার অনেক সময় অনেকের মুখে কোন আক্কেল দাঁত নাও আসতে পারে। তবে এটা নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। আক্কেল দাঁত থাকেই চোয়ালের একেবারে শেষ প্রান্তে। এই দাঁতটি উদ্‌গমের সময় অনেকেই বুঝতে পারেন না যে, তার মুখে আক্কেল দাঁত আসছে/এসেছে। আবার অনেকে এই দাঁত আসার আগেই বুঝতে পারেন কিছু কিছু সমস্যা হচ্ছে যেমন-

১। খাবার গ্রহণের সময় উক্ত দাঁতে ব্যথা হতে পারে।

২। দাঁত উঠতে না পারার জন্য আক্কেল দাঁতের উপর ঢেকে থাকা টিস্যুতে (operculu) উপরের দাঁতের ঘর্ষণের ফলে টিস্যু আক্রান্ত হয়। পরবর্তীতে ইনফেকশন হতে পারে। ৩। দাঁতটি ঠিকভাবে পরিষ্কারের অভাবে ক্যারিজে আক্রান্ত হয়। ৪। চিকিৎসার অভাবে ক্যারিজ আরও বিস্তার লাভ করে। এতে ইনফেকশন বেড়ে গিয়ে পূজ জমে যায়। ৫। এভাবে চলতে থাকলে চোয়ালের হাড় ক্ষয় হয়ে পূজ মুখের বাইরে বের হতে থাকে।

৬। আক্কেল দাঁতের নানা রকম অবস্থান থাকে। যেমন- Mesio=-Angular, Disto-Angular, Horizon tal, Vertical ইত্যাদি। এদের মাঝে Mesio-Angular 3 Horizontal অবস্থানে দ্বিতীয় পোষণ দাঁত ও আক্কেল দাঁতের মধ্যস্থলে খাবার জমে পচে ক্যারিজ থেকে ইনফেকশন তৈরি হয়। ফলে দ্বিতীয় পোষণ দাঁতও (Second molar tooth) নষ্ট হয়ে যায়। ৭। আক্কেল দাঁত ইঁপপধষষু মুখের সম্মুখভাগে থাকলে খাবার সময় উপর-নিচ দাঁতের ঘর্ষণে গালের নরম মাংসে কামড় বেশী লাগে ফলে সেখানে ব্যথা থেকে ইনফেকশন পর্যন্ত হতে পারে।

৮। বহুদিন যাবৎ এমন Cheekbite হতে থাকলে সেখানে Fibrosis হয়ে যায়।

৯। অনেক সময় দেখা যায় মুখে অন্য কোন দাঁতে সমস্যা নেই কিন্তু শুধুমাত্র আক্কেল দাঁতেরই সমস্যা সে ক্ষেত্রে এই দাঁতের মধ্যস্থিত পচে যাওয়া খাবার কণা এবং ক্যারিজ থেকে মুখে দুর্গন্ধও হতে পারে।

প্রতিকারঃ

- যখনই মুখে এই সমস্যাগুলোর কোন একটি দেখা যাবে তখনই দেরী না করে অভিজ্ঞ ডেন্টাল সার্জনের পরামর্শসহ চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে।
- আক্কেল দাঁতে প্রাথমিক অবস্থায় ব্যথা হলে হালকা লবণ গরম পানি কুলি করা যেতে পারে।
- দরকার হলে ব্যথানাশক ঔষধ সেবন করতে হবে। তবে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে।
- অনেক সময় আক্কেল দাঁত ঠিকমত উঠতে পারে না। সেক্ষেত্রে Operculectony করলে সমস্যার সমাধান হতে পারে।
- দাঁতের অবস্থান সুবিধাজনক না হলে এবং দাঁতের বেশিরভাগ অংশ ক্যারিজে আক্রান্ত হলে সে ক্ষেত্রে দাঁতটি ফেলে দেয়াই উত্তম।
- আবার দাঁতে ক্যারিজ হলেই দাঁত ফেলে দিতে হবে এমনটি নয়। দাঁতের অবস্থা ঠিক থাকলে ফিলিং রুট ক্যানেল ক্যাপ করেও চোয়ালে ধরে রাখাই উত্তম চিকিৎসা।

**************************
ডাঃ নাহিদ ফারজানা
চেম্বার-নাহিদ ডেন্টাল কেয়ার, ২৬১/বি, এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা
দৈনিক ইত্তেফাক, ১৫ নভেম্বর ২০০৮।