আজকাল মহিলাদের পাশাপাশি পুরুষরাও সাংঘাতিক রকম ত্বক সচেতন। মুখে কোন ব্রাউন স্পটরা বাদামী স্পট, মেছতা, চোখের নীচে কালি, ব্রণ, তিল, আঁচিল, মোল এসব থেকে একেবারে মুক্ত থাকা চাই। কিন্তু এসবের চিকিৎসা ক্ষেত্রে রোগীরা প্রায়শই প্রতারণার শিকার হচ্ছে। বেশীরভাগ ক্ষেত্রে বিউটি পারলারগুলোতে এসব সমস্যার চিকিৎসার জন্য মহিলারা যাচ্ছেন। কিন্তু আমেরিকা, ইউরোপ, ব্যাংকক, সিঙ্গাপুর, এমনকি পার্শ্ববর্তী ভারতেও মুখের এ ধরনের সমস্যার চিকিৎসা করে থাকেন সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ। এমনকি মুখের তিল, মোল এসব অপসারণে বেশীরভাগ ক্ষেত্রে প্রয়োজন হয় এক ধরনের ইলেক্ট্রো সার্জিক্যাল ইনস্ট্রুমেন্ট, যা রেজিষ্টার্ড চিকিৎসক ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনী। তাছাড়া মেছতার তেমন কোন চিকিৎসা না থাকা সত্বেও বেশীর ভাগ রোগী লেজারের পিছনে ছুটছেন। ব্যয় করছেন হাজার হাজার টাকা। অথচ পৃথিবীব্যাপী মেছতার চিকিৎসায় লেজার ব্যবহার করা হয়না। তবে মনে রাখতে হবে মুখের দাগ, তিল, ব্রাউন স্পট, মুখের অবাঞ্ছিত লোম এসবের কোন মেডিক্যাল ট্রিটমেন্ট বা ওষুধ বা কসমেটিকের সাহায্যে কোন চিকিৎসা নেই। তাই চটকদার বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট না হয়ে আপনার নিকটস্থ চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হন। তিনি আপনাকে মুখের তিল, ব্রাউন স্পট, অবাঞ্ছিত লোম, মোল ইত্যাদি থেকে রক্ষার সুপরামর্শ দেখেন।

**************************************
লেখকঃ ডাঃ মোড়ল নজরুল ইসলাম
চুলপড়া, যৌন সমস্যা ও চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ
বাংলাদেশ লেজার স্কিন সেন্টার
বাড়ী নং-২২/এ, রোড-২, ধানমন্ডি, ঢাকা
উৎসঃ দৈনিক ইত্তেফাক, ১১ নভেম্বর ২০০৭