লম্বা সময়ের পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে রফেকক্সিব ব্যবহারে ওষুধ বন্ধ করার পরও ব্যবহারকারী এক বৎসর ধরে স্ট্রোক, হার্ট এটাক এবং মৃত্যুর ঝুঁকিতে থেকে যান। ‘মার্ক সার্প এন্ড ডোম’ কোম্পানী স্বেচ্ছায় গত চার বৎসর আগে বাজার থেকে তাদের পণ্য ভাইয়ক্স তুলে নেয়। অতি সম্প্রতি একটি বড় ট্রায়ালের ফলাফলে দেখা যায় রফেকক্সিব ব্যবহার বন্ধ করলেও ১৮ মাস ধরে হ্রম্বোটিক ইভেন্ট হবার আশংকা থেকে যায়। রফেকক্সির এর বিষাক্ততার জন্য হৃদরোগীরা ওষুধটি বন্ধ করে দেয়। এক বৎসর আগে রফেকক্সিব বন্ধ করেছে এমন সব মানুষের উপর জরিপ করে দেখা যায় তারা সবাই অবাঞ্ছিত হৃদ-ঝুঁকিতে আছে। ২৫৮৭ জন রোগীর উপর জরিপ করে গবেষকগণ ৮৪% রোগীর ফলোআপ করতে সমর্থ হন। রফেকক্সিব ব্যবহারকারী এই সব রোগীগণ ৭৯% ঝুঁকিতে থাকেন। এদে মধ্যে হার্ট এটাক এবং স্ট্রোক হবার আশংকা ছিল দ্বিগুণ। রফেকক্সিব ব্যবহারের পরবর্তী ওষুধহীন সময়ের দীর্ঘতায় কার্ডিয়াক ইভেন্ট কমার বিষয়টির সংশিস্নষ্টতার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। অতিসম্প্রতি গবেষকরা এসব তথ্য দেন। গত বৎসরের শেষের দিকে উক্ত গবেষণাপত্রটি এবং তৎসংলগ্ন একটি সম্পাদকীয় ‘দ্য ল্যানচেট’ জার্নালে প্রকাশিত হয়।

**************************
মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন
সূত্রঃ www.thelancetcom
দৈনিক ইত্তেফাক, ০৭ মার্চ ২০০৯।