স্বাস্থ্যকথা - http://health.amardesh.com
বিশেষজ্ঞের চেম্বার থেকে: সমস্যা পরামর্শ
http://health.amardesh.com/articles/1505/1/aaaaaaaaaa-aaaaaaa-aaaa-aaaaaa-aaaaaaa-/Page1.html
Health Info
 
By Health Info
Published on 04/25/2009
 
কিডনি সমস্যা নারীস্বাস্থ্য সমস্যা

বিশেষজ্ঞের চেম্বার থেকে: সমস্যা পরামর্শ

কিডনি সমস্যা
পরামর্শ দিয়েছেন
অধ্যাপক ডাঃ এম এ সালাম
অধ্যাপক, ইউরোঅনকোলজি বিভাগ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা

সমস্যাঃ আমার বয়স ৩৪ বছর। অবিবাহিত। বেশ কয়েক বছর ধরে আমার ডান কিডনিতে ২.৩ সেন্টিমিটার দীর্ঘএকটি পাথর হয়েছে। মাঝেমধ্যে কিডনি/কোমর প্রচণ্ড ব্যথা হয়।তলপেটে চিনচিন করে।হোমিও চিকিৎসা করিয়েছি কিন্তু কোনো কাজ হয়নি। অপারেশন ছাড়া পাথর ভাঙার কোনো ব্যবস্থা আছে কি? এবংএ চিকিৎসা কি নিরাপদ?
কামালহোসেন, চুয়াডাঙ্গা।

পরামর্শঃ কিডনিতে পাথর হওয়াটা একটি সাধারণসমস্যা। তবে এর আকার বড় হলে (২.৩ সেন্টিমিটারের বেশি) বেশ কিছু শারীরিক সমস্যা হতে পারে।তখন এটি দ্রুত অপসারণ করা প্রয়োজন হয়।কিডনির পাথরের জন্যআধুনিক শল্যচিকিৎসা রয়েছে, যার মাধ্যমে এটি পুরোপুরি নির্মূল করা যায়।যেকোনো মূত্ররোগ ও কিডনি হাসপাতালে এ চিকিৎসা পাওয়া যাবে। গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, কিডনির পাথর ভালো হয়ে যাওয়ার পরও সব সময় চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে থাকতে হবে। কারণভালো হয়ে যাওয়ার পরও এটি আবার হতে পারে। আপনি মেডিকেলকলেজ হাসপাতালের কিডনি ও মূত্ররোগ বিভাগে দেখা করুন। আপনার পিসি এমএল পরীক্ষাও করা লাগতে পারে।

নারীস্বাস্থ্য সমস্যা
পরামর্শ দিয়েছেন
অধ্যাপক ডাঃ আনোয়ারা বেগম
সাবেক বিভাগীয় প্রধান, স্ত্রীরোগ ও প্রসূতিবিদ্যা বিভাগ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল
সমস্যাঃ আমার বয়স ২৫ বছর। তিন মাস ধরে আমি আমার ডান স্তনে হাত দিয়ে চাপ দিলে একটি ব্যথাহীন গোলাকার পিণ্ডের উপস্থিতি অনুভব করি। এ থেকে স্তনের আকার বিকৃতি বা ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা আছে কি?
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, করটিয়া, টাঙ্গাইল।

পরামর্শঃ স্তনে গোলাকার পিণ্ড হলেই যে সেটা ক্যান্সার হবে, এমন নয়। পিণ্ড বা টিউমার দুই ধরনের-ক্যান্সার টিউমার এবং বেনাইন টিউমার, যাকে নির্দোষ টিউমারও বলা যায়। স্তনের এ ধরনের ব্যথাহীন পিণ্ড থেকে ক্যান্সার নাও হতে পারে। তবে যত দ্রুত সম্ভব বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে দেখিয়ে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হোন। যে ধরনের টিউমারই হোক না কেন, শুরুতেই ধরা পড়লে এর চিকিৎসা আছে। তাই লজ্জা বা দ্বিধা না করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে দেখান। নিয়ম মেনে নিয়মিত স্তন পরীক্ষা করুন। খেয়াল করুন, অন্য কোনো ধরনের গুটি বা পিণ্ডের অস্তিত্ব টের পান কি না।
তিন মাস ধরে স্তনে পিণ্ডের অস্তিত্ব অনুভব করার পরও এটা নিয়ে বসে থাকাটা ঠিক হয়নি।

**************************
প্রথম আলো, ২৫ মার্চ ২০০৯।