মানসিক চাপ বা স্ট্রেস অতিমাত্রায় বাড়লে এবং তা দীর্ঘস্থায়ী হলে হার্ট এ্যাটাক, স্ট্রোক, ডায়াবেটিস, রক্তচাপ, কোলেস্টারল বৃদ্ধি ইত্যাদি বিভিন্ন মেটাবলিক রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও বৃদ্ধি পায়। বিজ্ঞানীদের মতে স্ট্রেস বা মানসিক চাপের কারণে মস্তিষ্কের হাইপোথ্যালামাস অংশ পিটুইটারী নামের অন্তঃক্ষরা গ্রন্থিকে উজ্জীবিত করে, যা দ্রুত অ্যাড্রিনাল নামক গ্রন্থিকে অতিমাত্রায় কর্টিসোল নামের স্ট্রেস হরমোনের নিঃসরণে উদ্দীপ্ত করে। রক্তে কর্টিসোলের মাত্রাবৃদ্ধির কারণে বিপাকীয় কার্যক্রম বিঘ্নিত হয়- কেউ কেউ অতিরিক্ত আহারে অভ্যস্ত হয়। স্ট্রেস মোকাবিলায় ধূমপান, মদ্যপানে আসক্ত হয় এবং সক্রিয় জীবন-যাপন থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেয়। এসব কারণে স্থূলতা বাড়ে মেদভুঁড়ির সৃষ্টি হয়, যা পরিণামে ঝুঁকিপূর্ণ রোগের জন্ম দেয়। স্বাস্থ্য বিজ্ঞানীরা তাই মানসিক চাপ স্ট্রেস এড়াতে উপদেশ দিয়েছেন।

**************************
উৎসঃ দৈনিক নয়াদিগন্ত, ০২ ডিসেম্বর ২০০৭