ছোট্ট সোনামণি, ১০ দিন বয়স। তার সব ভালো, শুধু রাতের বেলায় কাঁদে। মাকে ঘুমাতে দেয় না, কিন্তু দিনের বেলা সারা দিন ঘুমায়। মা-বাবা উদ্বিগ্ন-শিশুর কি কোনো সমস্যা?

না, এটা কোনো মারাত্মক সমস্যা নয়। শিশু যখন মাতৃগর্ভে থাকে, তখন জঠরের উষ্ণতায়, মায়ের পরম মমতায় সারা দিন-রাত সে ঘুমিয়ে থাকে। কোনো খাবারেরও তার প্রয়োজন হয় না। কারণ ফুলের মাধ্যমে শিশু মায়ের শরীর থেকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি পেয়ে যায়। তার মস্তিষ্ক দিন ও রাতের পার্থক্য করতে পারে না। দিনের বেলা কাজ করার জন্য, জেগে থাকার জন্য এবং রাতের বেলা ঘুমানোর জন্য-এই জীবনচক্রে অভ্যস্ত হতে জন্মের পর শিশুর কিছুদিন সময় লাগে।

নবজাতক জন্মের পর ১৮ থেকে ২০ ঘণ্টা ঘুমিয়ে কাটায়। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে শিশুর ঘুম কমতে থাকে এবং রাতে ঘুমানোর অভ্যাসে শিশু অভ্যস্ত হতে থাকে। সুতরাং আপনার সোনামণির আচরণের সঙ্গে মানিয়ে নিতে মা হিসেবে আপনার নিজের রুটিন একটু বদলে নিতে হবে।

দিনের বেলা যখন সে ঘুমাবে, আপনিও একটু ঘুমিয়ে নিতে পারেন। আর রাতের বেলায় শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর সময়ও আপনি বিশ্রাম নিতে পারেন, প্রয়োজনে ঘুমাতেও পারেন।

এ ছাড়া শিশুর বাবা দিনের বেলায় কাজের ফাঁকে ফাঁকে শিশুর যত্নে আপনাকে সাহায্য করতে পারেন। রাতে যদি শিশু কান্না করে তখন শিশুকে কোলে নিয়ে আদর করতে পারেন, হাঁটতে পারেন। বাবার স্মেহের স্পর্শে শিশুর কান্না থেমে যাবে।

পরিবারে আর যাঁরা আছেন-দাদা, নানা বা অন্য স্বজনেরা শিশুর যত্নে মাকে সহযোগিতা করতে পারেন, যেন মা পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিতে পারেন। এর সঙ্গে সঙ্গে মায়ের খাবারের দিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

সব খাবার একটু বেশি করে খেতে মাকে উৎসাহিত করতে হবে।

একটা সুন্দর শিশুর মা আপনি-এ সময়ের এই কষ্টকে আপনি স্বাভাবিকভাবে নিন। পৃথিবীর সব মাকেই এ কষ্টটুকু সইতে হয়। গানে-কবিতায় এই মায়ের জন্যই ভালোবাসার প্রকাশ দেখা যায়-‘মধুর আমার মায়ের হাসি চাঁদের মুখে ঝরে···’।

আপনার ছোট্ট সোনামণি ভালো থাকুক। 

 
**************************
লেখকঃ  ডা· তাহমীনা বেগম
অধ্যাপক, শিশু বিভাগ, বারডেম
উৎসঃ দৈনিক প্রথম আলো, ১২ ডিসেম্বর ২০০৭