ব্যায়াম বা শরীর চর্চা প্রতিটি পূর্ণ বয়স্ক মানুষের করা বাঞ্জনীয়। ব্যায়াম শুধু শরীরকে সচল ও ফিট রাখে তাই নয়, ব্যায়ামের মাধ্যমে শরীরের খারাপ চর্বি বা ব্যাড কোলেষ্টেরলের মাত্রা কমে এবং ভালো চর্বি বা গুড কোলেষ্টেরল এইচডিএল-এর মাত্রা বাড়ে। পাশাপাশি ব্যায়াম করলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন ত্বরাম্বিত হয় এবং দ্রুত রক্ত চলাচলের কারণে হার্টের রক্তনালীতে চর্বি জমতে পারেনা। ফলে হার্টে ব্লক তৈরীও হতে পারে না, পাশাপাশি যাদের হার্টের রক্তনালীতে ব্লক বা খানিকটা চর্বি জমেছে সেক্ষেত্রেও ব্যায়াম রক্তনালীতে অতিরিক্ত চর্বি জমতে দেয়না। এছাড়া নিয়মিত ব্যায়াম করলে শরীর মুটিয়ে যাওয়ার হাত থেকেও রক্ষা পায়। এমনকি যারা নিয়মিত ব্যায়াম করেন তাদের মানসিক চাপ কমে, প্রতিদিন না হলেও সপ্তাহে অন্ততঃ ৫দিন ব্যায়াম করা উচিত। ব্যায়াম বলতে শরীর চর্চা, সাতার, সাইক্লিং, ট্রেডমিল, হাঁটা, জগিং ইত্যাদি বুঝায়। তাই যার যে ধরণের ব্যায়ামের সুযোগ সুবিধা আছে তিনি সে ধরণের ব্যায়াম করতে পারেন। প্রতিদিন অন্ততঃ ৩০ মিনিট ব্যায়াম করা উচিত। যাদের দুবেলা ব্যায়াম করার অভ্যাস আছে তাদের সকালে ও বিকালে বা সন্ধ্যায় ব্যায়াম করলে কোন ক্ষতি নেই। তবে সকালে ঘুম থেকে উঠেই ভারী ব্যায়াম না করাই ভালো। সকালে ব্যায়াম করতে হলে খানিকটা জগিং করে তারপর ভারী ব্যায়াম করুন।

*************************
 ডাঃ রুবাইয়াত সিলভি
দৈনিক ইত্তেফাক, ২১ নভেম্বর ২০০৯।