সমস্যাঃ আমার বয়স ১৬। উচ্চতা পাঁচ ফুট দুই ইঞ্চি, ওজন ৫০ কেজি। পাঁচ মাস আগে থেকে আমার কোমরের বাঁ পাশে প্রচণ্ড ব্যথা। আমি একজন কিডনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে দেখাই। চিকিৎসক আমাকে আলট্রাসনোগ্রাম ও এক্স-রে করাতে বলেন। পরীক্ষাগুলো করানোর পর দেখা গেল, আমার কিডনিতে লেফট রেনাল করটিক্যাল সিস্ট হয়েছে। চিকিৎসক আমাকে একটা ওষুধ এক মাস খেতে বলেন। কিন্তু ওষুধগুলো খাওয়ার পরও কোনো কাজ হয়নি। এ রোগের জন্য অস্ত্রোপচার করানোর প্রয়োজন আছে কি না কিংবা অস্ত্রোপচার ছাড়া ওষুধ খেলে আমি এ রোগ থেকে মুক্ত পাব কি?

মো· রহিমউল্যাহ
কোম্পানীগঞ্জ, নোয়াখালী।


পরামর্শঃ কিডনির সিস্ট হচ্ছে পানিভর্তি এক ধরনের ফোসকা। কিডনির সিস্ট সাধারণত এমনিতেই ভালো হয়ে যায়। কোনো রকম চিকিৎসার প্রয়োজন হয় না। তবে এ থেকে যদি কোনো জটিলতা দেখা দেয়, যদি ক্যান্সার ধরা পড়ে তাহলে অবশ্যই উপযুক্ত চিকিৎসা নিতে হবে। এ ক্ষেত্রে ল্যাপারোস্কপি করা লাগতে পারে।


এ ছাড়া কতগুলো সিস্ট আছে যেগুলো বেশিসংখ্যক দুটি কিডনিতেই হয়ে থাকে। এ ধরনের সিস্ট হলে কিডনির কর্মক্ষমতা অনেক কমে যায় ও নানা ধরনের শারীরিক জটিলতাও দেখা দেয়। একে বলে এডাল্ট পলিসিস্টিক ডিজিজেস অব দ্য কিডনি। এ রকম হলে অভিজ্ঞ নেফ্রোলজি বিশেষজ্ঞের তত্ত্বাবধানে থাকতে হবে।


অবশ্য এ ক্ষেত্রে সাধারণ পর্যবেক্ষণই যথেষ্ট। নেফ্রোলজি বিশেষজ্ঞও হয়তো তেমন দীর্ঘমেয়াদি কোনো চিকিৎসা দেবেন না। এই রোগে খুব অল্পসংখ্যক ক্ষেত্রে শল্যচিকিৎসা নেওয়ার প্রয়োজন হয়। ৪০ বছর বয়সের পর থেকে ইউরোলজি বা নেফ্রোলজি বিশেষজ্ঞের তত্ত্বাবধানে থাকতে হয়। তাই আপনার এখনই চিন্তার কোনো কারণ নেই।


**************************
পরামর্শ দিয়েছেনঃ অধ্যাপক ডা· এম এ সালাম
ইউরোঅনকোলজি বিভাগ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা
দৈনিক প্রথম আলো, ২৬ ডিসেম্বর ২০০৭