সুস্থ হার্টের জন্য আমেরিকান হার্ট এসোসিয়েশন ৭টি পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছেন। হার্ট সুরক্ষার জন্য সাতটি পদক্ষেপ নিলে সুফল পাওয়া যাবে। সহজ সরল কিছু জীবনাচরন ও নিয়ম মানতে হবে।

সুস্থ হার্টের জন্য সম্প্রতি আমেরিকান হার্ট এসোসিয়েশন ৭টি পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছেন। যদি কারো টাইপ-২ ডায়াবেটিস থাকে তাহলে হার্ট সম্পর্কিত সমস্যা দেখা দেওয়ার সমূহ সম্ভাবনা। হার্ট সুরক্ষার জন্য সাতটি পদক্ষেপ নিলে সুফল পাওয়া যাবে। সহজ সরল কিছু জীবনাচরন ও নিয়ম। ক্স সক্রিয় হতে হবে। কারণ অকারণে চঞ্চল। উচ্ছল। জীবন হবে কর্মমুখর। শরীরচর্চা হবে জীবনের আচরণ। হার্ট হবে সবল সতেজ। কেন নয়, হাঁটা, প্রতিদিন। পার্কে, মেঠোপথে, পায়েচলা পথে, চরন দুটো ফেলে হাঁটা। অ-তঃ আধঘন্টা। সবসময়ের মানুষের জন্য এ এক অমূল্য ব্যায়াম, নিখরচায়। ০ নিয়ন্ত্রণে রাখুন রক্তের কোলেস্টেরলঃ জীবনাচরণে পরিবর্তন এনে। তাতেও যদি না হয় তখন নিতে হবে ওষুধ ডাক্তারের পরামর্শে। ওষুধ অবশ্যই খেতে হবে ডাক্তারের ব্যবস্থাপত্র নিয়ে। নিজে নিজে ওষুধ খাওয়া মোটেই সমীচিন নয়। ০ খেতে হবে ভালো। স্বাস্থ্যকর খাবার। চর্বি, লবণ, চিনি, মিষ্টি, মন্ডা-মিঠাই খুবই কম খেতে হবে। খেতে হবে বেশি বেশি শাক-সবজি, ফল, গোটাশস্য, আশঁ সমৃদ্ধ খাবার। ক্স রক্তচাপ যদি বেশি থাকে তাহলে একে মোকাবেলা করতে হবে। লবণ একেবারে কম। পাতে লবণ তো নয়ই, নোনতা খাবার ও নয়। আচার, চিপস, নোনতা, নিমকি নয়। ফল, শাক-সবজি, মাছ ভালো। ব্যায়াম করা। চাপকে মোকাবেলা জীবনাচরণে এসব পরিবর্তন আনতে হবে। প্রয়োজনে ওষুধ। ওষুধে নিয়ন্ত্রণ হলে ওষুধ ছাড়া ঠিক নয়। কারণ ওষুধ ছাড়লে আবার বেড়ে যাবে। ০ শরীর ভারি হলে, ওজন বেশি হলে ওজন কমাতে হবে। খাদ্যবিধি ও ব্যায়াম এদুটোর মাধ্যমে শরীর থেকে ঝরাতে হবে বাড়তি ওজন। ০ রক্তে সুগার মান বেশি থাকলে কমাতে হবে। খাদ্যবিধি, ব্যায়াম ও প্রয়োজনে ওষুধ। ডায়াবেটিস হয়ে গেলে প্রখ্যত জাতীয় অধ্যাপকের সুবর্ণ সূত্র পালন করতে পারেন-৩উ উরবঃ উৎঁম উরংপরঢ়ষরহব সঠিক খাদ্যবিধি, প্রয়োজনে ওষুধ, ব্যায়াম, জীবনে শৃঙ্খলা। জীবনে পরিমিতি আনলে সমস্যা থেকে মুক্তি মেলে সহজে। ০ ধূমপান বর্জনঃ ধূমপান বর্জনে আছে পরম সুখ। পরিত্রান পাওয়া যায় অসুখ থেকে। ব্যাখ্যার প্রয়োজন নাই। ধূমপান করে থাকলে অবশ্যই ছাড়তে হবে। ধূমপানের পক্ষে কোনও যুক্তি নাই। এভাবে পাবেন হৃদরোগ, হৃদস্বাস্থ্য।

**************************
অধ্যাপক শুভাগত চৌধুরী
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস, বারডেম।
দৈনিক ইত্তেফাক,  ২০ মার্চ ২০১০।