স্বাস্থ্যকথা - http://health.amardesh.com
চুল পড়া সমস্যা চিকিৎসা নিয়ে বিভ্রান্তি
http://health.amardesh.com/articles/2371/1/aaa-aaa-aaaaaa-aaaaaaa-aaaa-aaaaaaaaaa/Page1.html
Health Info
 
By Health Info
Published on 05/7/2010
 
চুলপড়া কোন রোগ নয়, তেমনি চুলপড়ার কোন সুনির্দিষ্ট চিকিৎসাও নেই। বেশীরভাগ ক্ষেত্রে চুলপড়ার সমস্যার ক্ষেত্রে রোগীরা ভুল চিকিৎসার শিকার হন। কোন প্রকার চিকিৎসা ছাড়াই চুলের বিজ্ঞান সম্মত পরিচর্যা করলে চুলপড়া বহুলাংশে কমে।

চুল পড়া সমস্যা চিকিৎসা নিয়ে বিভ্রান্তি

চুলপড়া কোন রোগ নয়, তেমনি চুলপড়ার কোন সুনির্দিষ্ট চিকিৎসাও নেই। বেশীরভাগ ক্ষেত্রে চুলপড়ার সমস্যার ক্ষেত্রে রোগীরা ভুল চিকিৎসার শিকার হন। কোন প্রকার চিকিৎসা ছাড়াই চুলের বিজ্ঞান সম্মত পরিচর্যা করলে চুলপড়া বহুলাংশে কমে।

চুলপড়া সমস্যা নিয়ে অনেকে লেখেন,

অনেকে চিকিৎসা করেন। স্কিন বিশেষজ্ঞগণকে চুলপড়া সমস্যা নিয়ে পড়তে হয়। চুলপড়া সমস্যার সমাধানে বিভিন্ন দেশে বিশেষজ্ঞ আছেন। তারা শুধুমাত্র চুলপড়া সমস্যা ছাড়া অন্যকোন রোগী দেখেন না অথবা দেখার সময় পাননা। আমারও ইচ্ছ ছিলো শুধুমাত্র চুলপড়া সমস্যার বিশেষজ্ঞ হিসেবে (ট্রাইকোলজিস্ট) বাংলাদেশে প্রাকটিস করবো। কি‘ শেষ পর্যন্ত এ সিদ্ধা- বদলাতে হয়েছে। ট্রাইকোলজিস্ট হবার ইচ্ছার পেছনে যুক্তিও ছিলো। যুক্তরাষ্ট্রে লেজার ও কসমেটিক সার্জারীর ওপর ফেলোশীপ করার সময় হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারীর ওপর ডিপ্লোমা করি। আমার বস ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জন অধ্যাপক বারনার্ড কোহেন। তিনি মায়ামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং প্রেফেসর অব ডার্মাটোলজি। এছাড়া সিঙ্গাপুরেও চুলপড়া সমস্যার ওপর দীর্ঘ প্রশিক্ষণ নেই। অধ্যাপক বার্নাড কোহেন চুলপড়া সমস্যার রোগীদের কনস্যাল্টেশনের সময় আমাকে অবজারভার হিসেবে থাকার অনুমতি দেন। যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরে প্রথম দু’বছর শুধু চুলপড়া সমস্যার রোগীই দেখতাম। কি‘ শেষ পর্যন্ত আর হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারী করা হয়নি। জেনারেল ডার্মাটোলজি, লেজার, কসমেটিক ডার্মাটোলজি এবং চুলপড়া সমস্যার সাধারণ চিকিৎসা ও পরামর্শের মধ্যে সীমাবদ্ধ আছি। তবে অধ্যাপক বারনার্ড কোহেনের একটা আদেশ অক্ষরে অক্ষরে স্মরণ করি। তিনি বলতেন চুলপড়া কোন রোগ নয়, তাই এর কোন সুনির্দিষ্ট চিকিৎসা নেই। শরীরের অন্যান্য নানা কারণে এমনকি প্রবল মানসিক চাপ থেকেও চুলপড়তে পারে। তাই চুলপড়ার কারণ বের করে চিকিৎসা দিতে হবে। যেমনঃ বংশগত কারণে চুলপড়তে পারে, হরমোনের কারণে চুলপড়তে পারে, নিউট্রিশনাল ডেফিসিয়ান্সির কারণে চুলপড়তে পারে। এছাড়া শরীরের কোন ইন্টারনাল ডিজিজ থাকলেও চুলপড়তে পারে। মাথায় কোন চর্মরোগ, খুশকি, হলেও চুল পড়তে পারে। চুলপড়া যেমন কোন রোগ নয়, তেমনি চুলপড়ার কোন সুনির্দিষ্ট চিকিৎসাও নেই। বেশীরভাগ ক্ষেত্রে চুলপড়ার সমস্যার ক্ষেত্রে রোগীরা ভুল চিকিৎসার শিকার হয়। কোন প্রকার চিকিৎসা ছাড়াই চুলের বিজ্ঞান সম্মত পরিচর্যা করলে চুলপড়া বহুলাংশে কমে। তবে অনেক ক্ষেত্রে চুলের আগা ফেটে যায়, চুলের কান্ড ভেঙ্গে যায় অথবা গোড়াসহ চুল উঠে যায়। এসব ক্ষেত্রে ক্যালসিয়ামের অভাব হতে পারে। এছাড়া চুলের অনেক সমস্যা আছে যা শুধুমাত্র একটি ভালো কন্ডিশনার ব্যবহার করলেই চলে। চুলের নানা ধরণ আছে। আজকাল অনেক ডার্মাটোলজিস্ট চুলের সমস্যা নিরুপণে হেয়ার এনালাইজার ব্যবহার করেন। মোটকথা চুলপড়া সমস্যা, চুলের আগা ফেটে যাওয়া, চুলপড়া, চুলের গোড়াসহ চুল উঠা যে কোন ধরণের সমস্যা হোক না কেন কোন অভিজ্ঞ ডার্মাটোলজিস্টের পরামর্শ ব্যতীত চুলে কোন ধরণের ওষুধ বা হারবাল লোশন ব্যবহার করবেন না। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। আগামীতে চুলের নানা সমস্যা নিয়ে ধারাবাহিক লেখার ইচ্ছা আছে।

**************************
ডাঃ মোড়ল নজরুল ইসলাম
চর্ম, এলার্জি ও যৌন সমস্যা বিশেষজ্ঞ এবং লেজার এন্ড কসমেটিক সার্জন।
সহকারী অধ্যাপক, গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতাল, ধানমন্ডি, ঢাকা।
দৈনিক ইত্তেফাক,  ১লা মে ২০১০।