স্বাস্থ্যকথা - http://health.amardesh.com
সমস্যা ও সমাধানঃ হার্টের সমস্যা
http://health.amardesh.com/articles/278/1/aaaaaa-a-aaaaaaa--aaaaaaa--aaaaaa/Page1.html
Health Info
 
By Health Info
Published on 03/6/2008
 
হার্টের সমস্যাঃ আমার বয়স বর্তমানে ৩৫ বছর। ১৮-১৯ বছর বয়সে হার্টের প্রচুর ব্যথা অনুভব করি, তখন একজন হার্টের সার্জনের কাছে যাই। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা গেল আমার একটি ভাল্ব নষ্ট হয়েছে এবং খুব দ্রম্নত অপারেশন করানোর প্রয়োজন। কিন্তু অর্থকষ্টের জন্য অপারেশন করানো সম্ভব হয়নি। মাঝে মধ্যে ব্যথা হলেই ওষুধ খেয়ে কমিয়ে রাখতাম। এখন প্রচণ্ডভাবে ব্যথা হয় এবং খুব কষ্ট পাচ্ছি।

সমস্যা ও সমাধানঃ হার্টের সমস্যা

 হার্টের সমস্যাঃ আমার বয়স বর্তমানে ৩৫ বছর। ১৮-১৯ বছর বয়সে হার্টের প্রচুর ব্যথা অনুভব করি, তখন একজন হার্টের সার্জনের কাছে যাই। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা গেল আমার একটি ভাল্ব নষ্ট হয়েছে এবং খুব দ্রম্নত অপারেশন করানোর প্রয়োজন। কিন্তু অর্থকষ্টের জন্য অপারেশন করানো সম্ভব হয়নি। মাঝে মধ্যে ব্যথা হলেই ওষুধ খেয়ে কমিয়ে রাখতাম। এখন প্রচণ্ডভাবে ব্যথা হয় এবং খুব কষ্ট পাচ্ছি। এমতাবস্থায় আমার অন্য ভাল্বটি কি নষ্ট হতে পারে? অপারেশন করাতে অর্থ কেমন ব্যয় হতে পারে? আমাদের দেশে এ চিকিৎসায় কতটুকু সাফল্য বয়ে আনে। তা ছাড়া সুস্থ হতে ক’দিন সময় লাগে, ভাল্ব নষ্ট হওয়ার জন্য কারণ কী হতে পারে?

সমাধানঃ হ্যাঁ, আরেকটি ভাল্ব নষ্ট হতে পারে তবে পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হতে হবে যে ক’টি ভাল্ব নষ্ট আছে। ভাল্বের অপারেশন করাতে আমাদের দেশে সরকারিভাবে সাধারণত খরচ হয়ে থাকে সর্বসাকুল্যে ১ লাখ ২০ হাজার থেকে ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা একটি ভাল্বের বেলায়। আর দুইটি ভাল্বের জন্য ১ লাখ ৮০ হাজার থেকে ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা। বেসরকারিভাবে ২৫-৩০ হাজার টাকা অতিরিক্ত খরচ হয়ে থাকে। ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে সুস্থ হওয়া যায়। স্বাভাবিক চলাফেরা ও কাজকর্ম করা যায়। কিছু দিন বিশ্রামে থাকার প্রয়োজন এবং খাবার-দাবার স্বাভাবিক গ্রহণ করতে হবে। নিয়মিত ব্যায়াম ও হাঁটাহাঁটির অভ্যাস করবেন। বাতজ্বরজনিত কারণে সাধারণত এই ভাল্ব নষ্ট হয়ে থাকে। অপারেশন না করানো পর্যন্ত ব্যথা হলে নিজে নিজে কোনো প্রকার ওষুধ ব্যবহার করবেন না। নিয়মিত হার্ট সার্জনের সাথে পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। যথাসম্ভব অপারেশন করানোটাই হচ্ছে আপনার জন্য একান্ত উত্তম বলে মনে করি।
 
**************************
উত্তর দিয়েছেন...অধ্যাপক ডা. নাসির উদ্দিন আহমেদ; হৃদরোগ,
বক্ষব্যাধি ও রক্তনালী বিশেষজ্ঞ সার্জন,
জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, শেরে-ই-বাংলানগর, ঢাকা।
দৈনিক নয়া দিগন্ত, ০২, মার্চ ২০০৮