উচ্চ রক্তচাপ কি?
উচ্চ রক্তচাপ বিশ্বে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ছে। সারা বিশ্বে ১৫০ কোটি মানুষ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছে। হৃদরোগ, স্ট্রোক এবং কিডনী রোগের জন্য উচ্চ রক্তচাপ একটা গুরুত্বপূর্ণ রিস্ক ফ্যাক্টর বা ঝুঁকিপূর্ণ উপাদান।

উচ্চ রক্তচাপ দিবসের উদ্দেশ্য

জনগণকে উচ্চ রক্তচাপ সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানানো, সচেতন করা, প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা এবং এই রোগের জটিলতা এবং চিকিৎসা সম্পর্কে অবহিত করাই বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবসের উদ্দেশ্য। প্রতি বছর ১৭ মে বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস উদযাপন করা হয়ে থাকে।

বাড়িতে কেন রক্তচাপ পরিমাপ করবেন?

বাড়িতে রক্তচাপ মাপার ফলে আপনি নিজে এবং আপনার চিকিৎসক আপনার রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কিত প্রতিদিনের একটি চিত্র পাবেন। এর ফলে জীবন-যাপনের পরিবর্তন এবং ওষুধ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে কতখানি ভূমিকা রাখছে সেটা বোঝা যাবে। ডাক্তারের কাছে যাওয়ার পূর্বের এক সপ্তাহে প্রতিদিন দুই বার করে রক্তচাপ মাপা এবং রেকর্ড রাখা ভালো। আপনার প্রাত্যহিক জীবনে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখার ক্ষেত্রে এই রেকর্ড বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

আপনার উচ্চ রক্তচাপ আছে কিনা সেটা জানার একমাত্র উপায় রক্তচাপ পরিমাপ করা। এজন্য বাসায় রক্তচাপ মাপুন।

রক্তচাপ পরিমাপের বেশিরভাগ আধুনিক যন্ত্রসমূহ স্বয়ংক্রিয় (অটোমেটিক) অথবা আধা স্বয়ংক্রিয় (সেমি অটোমেটিক) হয়ে থাকে। নিজের রক্তচাপ নিজে মাপা সহজ এবং নিরাপদ। তবে যে সব মানুষ বেশি উদ্বিগ্ন এবং যাদের শারীরিক অক্ষমতা আছে, তাদের রক্তচাপ মাপতে কিছুটা সমস্যা হতে পারে। এ সকল ক্ষেত্রে আপনি চিকিৎসক বা স্বাস্থ্যকর্মীর সাহায্য নিতে পারেন।

উচ্চ রক্তচাপ প্রতিরোধ করুন

রক্তচাপ পরিমাপের জন্য কি ধরনের যন্ত্র (মেশিন) ক্রয় করবেন?

রক্তচাপ পরিমাপের জন্য অনেক ধরনের মেশিন বের হয়েছে। চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে আপনার জন্য উপযুক্ত রক্তচাপ মাপার মেশিন এবং বাহুবন্ধনীর সাইজ নির্বাচন করুন।

০ ব্রান্ড কোম্পানীর লোগো দেখে সঠিক মেশিন কিনুন। যে সমস্ত মেশিনে এই দুটি লোগো আছে, সেগুলি কেনার চেষ্টা করুন।

০ অটোমেটিক মেশিন ব্যবহার করা সহজ, কিন্তু সেমি অটোমেটিক মেশিনের তুলনায় এই মেশিনের দাম বেশি।

০ রক্তচাপ মাপার বিভিন্ন সাইজের বাহুবন্ধনী পাওয়া যায়। বাহুতে যাতে বাহুবন্ধনী সঠিকভাবে লাগানো যায়, সেই দিকে গুরুত্ব দিতে হবে। বাহুবন্ধনীর সাইজ সঠিক না হলে রক্তচাপের রিডিং যথার্থ হয় না। বাহুবন্ধনীর সঠিক সাইজ নির্বাচনের জন্য চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী কিংবা দোকানদারের সাহায্য নিন।

রক্তচাপ কিভাবে পরিমাপ করবেন

০ রক্তচাপ পরিমাপের পূর্বে পাঁচ মিনিট বিশ্রাম নিন এবং প্রশান্ত (রিলাক্স) থাকুন। এ সময় মনোযোগ সহকারে কোন কিছুতে নিবিষ্ট থাকবেন না (যেমন টিভি দেখা)।

০ স্বাচ্ছন্দ্যবোধ না করলে, ঠান্ডা লাগলে, রাগাম্বিত হলে, কোন কিছুর চাপ বা টেনশনে থাকলে কিংবা ব্যথা অনুভূত হলে সেই সময় রক্তচাপ পরিমাপ করবেন না।

০ ভরপেট খাওয়ার পর অন্ততঃপক্ষে দুই ঘন্টা অপেক্ষা করুন এবং কফি বা ধূমপান করার পর আধা ঘন্টা অপেক্ষা করুন।

০ প্রস্রাব এবং পায়খানার বেগ থাকলে রক্তচাপ মাপার পূর্বে তা সেরে ফেলুন।

০ অনাবৃত বাহুতে বাহুবন্ধনী জড়ান।

০ এমন চেয়ারে বসুন, যাতে আপনি হেলান দিয়ে বসতে পারেন এবং বাহু রাখার জন্য সাইড টেবিল ব্যবহার করুন (চিত্র দেখুন)।

০ বাহুর নিচে তোয়ালে অথবা বালিশ রাখুন যাতে বাহুটা হার্টের বা হৃদপিন্ডের লেভেলে থাকে।

০ পায়ের পাতা মেঝের সমান্তরালে রাখুন, পায়ের উপর পা উঠিয়ে বসবেন না।

০ সাতদিন যাবৎ বাড়িতে সকাল-সন্ধ্যা দুইবার রক্তচাপ পরিমাপের মাত্রাকে বাড়ির রক্তচাপের রেকর্ড হিসাবে গণ্য করা উচিত।

০ সঠিক নিয়মে রক্তচাপ পরিমাপের পর পরই তা লিপিবদ্ধ করুন।

০ বাড়িতে একদিন অথবা প্রথম দিন রক্তচাপ মাপার মাত্রাকে সঠিক ধরা উচিত নয়।

স্বাভাবিক রক্তচাপ কি?

০ দিনে রক্তচাপ অবশ্যই গড়ে ১৩৫/৮৫ মি·মি· অব মার্কারী এর নিচে থাকতে হবে।

০ বাড়িতে মেপে যদি দেখা যায় রক্তচাপ সব সময় ১৩৫/৮৫ মি·মি· অব মার্কারী এর বেশি আছে, তাহলে চিকিৎসা নিতে হবে।

০ ডায়াবেটিস অথবা কিডনী রোগীদের রক্তচাপ ১৩৫/৮৫ মি· মি· অব মার্কারী এর কম হতে হবে।

রক্তচাপের মাত্রা অস্বাভাবিক হলে কি করবেন?

০ আতংকিত হবেন না।

০ আপনার চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করুন এবং তার পরামর্শ মেনে চলুন।

০ নিজে নিজে কোন ওষুধ খাবেন না কিংবা ওষুধের মাত্রা কম-বেশি করবেন না।

রক্তচাপ পরিমাপের সময় করণীয়

কথা বলবেন না

হেলান দিয়ে বসুন

কাফ বাহুর মধ্যবর্তী জায়গায় জড়ান

যাতে বাহুটি হার্টের লেভেলে থাকে

বসে থাকুন।

বাহুটি অবশ্যই কোন কিছুর উপরে রাখুন

পা ছড়িয়ে বসুন।

**************************
দৈনিক ইত্তেফাক, ১৭ মে ২০০৮
নিবন্ধটি বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস উপলক্ষে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের
তথ্য অনুযায়ী রচিত