বিজ্ঞানীদের মতে বয়স বাড়ার সাথে সাথে আমাদের শ্রবণশক্তিরও পরিবর্তন ঘটতে থাকে, অনেক ক্ষেত্রেই শ্রবণশক্তি হ্রাস পেতে থাকে। আমাদের কানের অভ্যন্তরে বিশেষ অঞ্চলে অবস্থিত শব্দ সংগ্রাহক সংবেদী কোষগুলোও অকার্যকর হতে থাকে। শব্দ সংগ্রাহক বিশেষ মেমব্রেন বা ঝিল্লীতে বয়সজনিত কারণে রক্ত প্রবাহ হ্রাস পায়। ফলে এমনটি হয়।

ইউনিভার্সিটি অব সাউথ ডাকোটা এবং ইলিনয়েস নর্থ-ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণা তথ্যে জানা যায়, মানুষ বিশ বছরের বয়সসীমায় সবচাইতে তীক্ষ্ণভাবে শব্দ শুনতে পায়, ত্রিশের পর থেকেই তার শ্রবণশক্তি কমতে থাকে। শ্রবণের জন্য শুধুমাত্র কানই যথেষ্ট নয়, মস্তিষ্কের ভূমিকাও খুব গুরুত্বপূর্ণ। বয়স বাড়তে থাকলে ডান এবং বাম মস্তিষ্কের মধ্যে সংযোগ ক্ষমতা কিছুটা হ্রাস পেতে থাকে। ফলে শ্রবণশক্তিও কমতে থাকে। বার্ধক্যে কম শোনা একটি স্বাভাবিক ব্যাপার। তবে শ্রবণশক্তি ধরে রাখতে চাইলে বিজ্ঞানীদের কয়েকটি সুপরামর্শ রয়েছে।

এগুলো হচ্ছেঃ একঃ অতিমাত্রার উচ্চশব্দ এড়িয়ে চলুন। প্রয়োজনে কানে ইয়ার প্লাগ (Ear plug) লাগিয়ে নিন। দুইঃ কানে কম শুনলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। দাঁত এবং চোখের মতো কানের রুটিন চেকআপও জরুরী। তিনঃ অ্যাসপিরিন, অ্যান্টিবায়োটিক্স ইত্যাদি সেবনে কানে কম শুনলে ডাক্তারকে অবহিত করুন। চারঃ বিজ্ঞানীদের মতে আমাদের মস্তিষ্কই প্রকৃত শ্রবণেন্দ্রিয়। তাই মগজকে পড়াশুনা, পর্যবেক্ষণ ইত্যাদির মাধ্যমে শাণিত রাখুন। পাঁচঃ নিয়মিত পুষ্টিকর ডায়েট এবং ব্যায়াম, পর্যাপ্ত চিনি-শর্করা এবং রক্ত সরবরাহ করে দৃষ্টিশক্তি অক্ষুন্ন রাখে।

*************************
লেখকঃ  কায়েদ-উয-জামান
সহকারী অধ্যাপক,
শহীদ জিয়াউর রহমান কলেজ।

২৫শে নভেম্বর ২০০৭, দৈনিক ইত্তেফাকে প্রকাশিত।