বয়স বাড়ার সাথে সাথে অস্টিওপোরোসিস বা হাড়ের ক্ষয় হওয়ার ঝুঁকি বাড়তে থাকে। ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ‘ডি’-এর অভাবে অস্থির পুষ্টি ব্যাহত হয়। মেয়েদের মধ্যে অস্টিওপোরোসিস রোগে আক্রান্তের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে বেশি। অস্টিওপোরোসিস রোগের অনেক কারণ রয়েছে। এ রোগে হাড়ের ক্ষয় একটু দ্রুতগতিতে ঘটতে থাকে। ফলে মেরুদন্ড, হিপজয়েন্ট, কবজির অস্থি (Wristbone) ও অন্যান্য স্থানে হাড় ভেঙ্গে যাওয়ার (Fracture) ঝুঁকিও থাকে বেশি। পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন ট্যাবলেট ডাক্তারের পরামর্শ অনুসারে খাওয়া উচিত। তাছাড়া নিয়মিত ব্যায়াম চর্চার ফলেও অস্থির ওজন বৃদ্ধি (Bone mass) করা যায়। দুধ, কাঁটাযুক্ত ছোটমাছ, ফিশঅয়েল, ব্রকলী জাতীয় সবজি ইত্যাদি ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন ‘ডি’ সমৃদ্ধ খাবার হাড়ের পুষ্টি যোগায়। সূর্যালোক থেকেও ভিটামিন ‘ডি’ পাওয়া যায়। চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের মধ্যে অস্থিক্ষয় বা অস্টিওপোরোসিস রোধে আমাদের সবার সতর্ক ও সচেতন থাকা উচিত।

**************************
দৈনিক ইত্তেফাক, ৭ জুন ২০০৮