বমি বমি ভাব ও সকালে অসুস্থ বোধ করা
১) সকালে উঠার পর যদি বেশি অসুস্থ বোধ হয় তবে প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে হালকা কিছু যেমনঃ শুষ্ক টোস্ট বা সাধারণ বিস্কুট খেতে পারেন।
২) প্রচুর বিশ্রাম নিন এবং দুশ্চিন্তা পরিত্যাগ করুন।
৩) খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করবেন না।

বদ হজম ও বুকজ্বালা

১) অল্প অল্প করে প্রয়োজনে বার বার খাবার খান

২) বেশি মশলাযুক্ত খাবার পরিত্যাগ করুন

৩) রাতে বুকজ্বালা শুরু হলে এন্টাসিড ট্যাবলেট চুষে খেতে পারেন

৪) বেশি সমস্যা দেখা দিলে ডাক্তার দেখান

কোষ্ঠকাঠিন্য

০ প্রচুর পানি, আঁশযুক্ত খাবার ও শাক-সবজি বেশি করে খান
০ নিয়মিত শারীরিক ব্যায়াম করে মাংসপেশীর টান ঠিক রাখুন

পায়ের গিরা ও পা ফোলা

০ অনেকক্ষণ যাবৎ দাঁড়িয়ে থাকবেন না
০ পা যতটা সম্ভব উপরের দিকে রেখে শুয়ে থাকুন
০ রক্তচাপ পরিমাপ করাবেন
০ লবণ কম খাবেন

যোনীর নিঃসরণ

সকল মহিলারই গর্ভাবস্থায় যোনীর নিঃসরণ বেড়ে যায়। এটা সাধারণতঃ সাদা পরিষ্কার হয তবে গন্ধ থাকে না। যদি যোনীর নিঃসরণ গন্ধযুক্ত, রঙ্গীন হয় এবং আপনি অস্বস্তি বোধ করেন, তবে বুঝতে হবে আপনার যোনীতে জীবাণুর সংক্রমণ হয়েছে। প্রয়োজনে আপনার ডাক্তারের পরামর্শ নিন আর সেইসাথে আপনার সুস্থ গর্ভাবস্থা নিশ্চিত করতে যথাসম্ভব নজর রাখুন নিম্নলিখিত বিষয়গুলোর উপরঃ

০ সব সময় ধীরে ধীরে দাঁড়াবেন, কখনই আচমকা দাঁড়াবেন না
০ এক জায়গায় বেশিক্ষণ বসে থাকবেন না
০ প্রতিদিন ৮-১০ গ্লাস পানি পান করুন
০ বেশি লবণ খাওয়া থেকে বিরত থাকুন
০ প্রচুর পরিমাণে আঁশযুক্ত খাবার যেমন-রান্না করা অথবা কাঁচা ফল এবং সবুজ শাকসবজি, সালাদ খাবেন
০ প্রচুর পরিমাণে অল্প চর্বিযুক্ত ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খাবেন
০ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যায়াম করবেন
০ ক্লান্তিবোধ হলে কিছু সময় বিশ্রাম নিন।
০ যতটা সম্ভব দুঃচিন্তা পরিহার করুন।
০ প্রতিদিন অন্তত ৮ ঘন্টা ঘুমাবেন। প্রয়োজনে বিকেল বেলায় বিশ্রাম নিন।
০ বাম কাত হয়ে ঘুমাবেন। এর ফলে বাচ্চার জন্য পুস্টি ও অক্সিজেন বহনকারী রক্তনালীকার উপর চাপ পড়বে না।

**************************
ডাঃ এ. কে. এম. মাসুদ পারভেজ
মেডিক্যাল অফিসার, সিআরপি, সাভার, ঢাকা
দৈনিক ইত্তেফাক, ১১ অক্টোবর ২০০৮