স্বাস্থ্যকথা

Daily Amardesh

Articles published in Daily Amardesh.

(Page 2 of 3)   « Prev  1  
2
  3  Next »

 Articles by this Author

(ডা. মোহাম্মদ ফারুক হোসেন) রক্তের ক্যাসার প্রাথমিক পর্যায়ে ধরা পড়লে এবং যথাযথ চিকিৎসা গ্রহণ করলে রোগ নিরাময় সম্ভব। ব্লাড ক্যাসারে যে ধরনের কোষ বিনাশকারী ওষুধ প্রয়োগ করা হয় তা ক্যাসার সেলকে ধ্বংস করে, কিন্তু পাশাপাশি কিছু সুস্হ কোষকেও নষ্ট করে। তাই দেহের অন্যান্য অংশের পাশাপাশি মুখেরও বিভিন্ন সমস্যা দেখা যায়।
(ডা. শাহজাদা সেলিম ) পৃথিবীতে এইডসের জীবাণু বহনকারী লোকের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ধারণা করা হচ্ছে পৃথিবীর চার কোটির বেশি মানুষ এইডসের জীবাণু বহন করছে। রাষ্ট্রসংঘের এইডসবিষয়ক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে যে, বিশ্বে প্রায় ৪ কোটি ৩ লাখ লোক এইচআইভি ধারণ করছে তাদের দেহে।
(ডা. ওয়ানাইজা) মরণব্যাধি এইডস প্রতিরোধে খাতনা কার্যকর ভুমিকা রাখতে পারে। সদ্যসমাপ্ত টরেন্টো বিশ্ব এইডস সম্মেলনে বিশেষজ্ঞরা এই মতামত জানিয়েছেন। আফ্রিকার যেসব দেশে খাতনার হার বেশি সেসব দেশে এইডসের হার তুলনামুলক কম।
(অধ্যাপক ডা.কেএ জলিল) দাঁত থাকতে দাঁতের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে যারা বোঝেন না, দাঁতের যত্ম নেন না, অল্প সমস্যা হলেই দন্ত চিকিৎসকের কাছে যান না এবং দাঁতের সঠিক পরিচর্যা করেন না; তারাই মুল্যবান দাঁত অকালে হারান এবং দাঁতের যন্ত্রণায় ভোগেন। অথচ একটু সচেতন হলে, প্রতিদিন দাঁতের যত্ম নিলে, প্রয়োজন হলেই দন্ত বিশেষজ্ঞের কাছে গেলে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দাঁতের মারাত্মক কোনো সমস্যা হতেই পারে না।
(অধ্যাপক (ডা.) মোহাম্মদ আশরাফ হোসেন) বিভিন্ন রোগ এবং চিকিৎসার ব্যাপারে আমাদের অনেক ভুল ধারণা ও কুসংস্কার রয়েছে। এ জন্য জনগণের অশেষ কষ্ট ও আর্থিক অপচয় ঘটে। চিকিৎসা বিষয়ে কুসংস্কার খুবই মারাত্মক ও দুঃখজনক। ভুল ধারণার জন্য এবং সময়মত সঠিক চিকিৎসার অভাবে রোগীর জীবনে নেমে আসে বিপর্যয় ও হতাশা।
(ডা. মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান হাওলাদার) দাঁতের ইনফেকশন থেকে হার্ট অ্যাটাকের কথা শুনে হয়তো অনেকেই অবাক হতে পারেন। কারণ আমাদের দেশের সাধারণ মানুষ দাঁতের রোগের বিষয় ওয়াকিবহাল নয়; তারা দাঁতের রোগের নানা প্রতিক্রিয়া সম্বন্ধেও সচেতন নয়। অথচ উন্নত বিশ্বে দাঁতের রোগের নানা ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসক এবং সাধারণ মানুষের মধ্যেও যথেষ্ট উৎকণ্ঠা এবং সচেতনতা লক্ষ্য করা যায়।
(ডা. আলেয়া সুলতানা) শিশুকালে আমাদের মুখে অস্হায়ী দাঁত থাকে। ৬ বছর বয়স থেকে স্হায়ী দাঁতগুলো উঠতে থাকে। আমাদের মুখে ২০টি অস্হায়ী দাঁত থাকে ও ৩২টি স্হায়ী দাঁত থাকে। দাত ও মাঢ়ির বিভিন্ন রোগের কারণে দাঁত পড়ে যায়। পড়ে যাওয়া দাঁতগুলো কৃত্রিমভাবে বাঁধানোর কাজটি প্রস্হডনটিষ্টরা করে থাকেন।
(ডা. ফারজানা হাকিম) আক্কেল দাঁত বা উইসডম টিথ সাধারণত ১৫ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে ওঠে। এই দাঁত ওঠার সময় বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তীব্র ব্যথা অনুভুত হয়। আক্কেল দাঁত ওঠার সময় তার উপরের মাঢ়ি ফুলে যায়- ফলে তার ভেতর খাবার ঢুকে এই ব্যথার সৃষ্টি করে।)
আমাদের অনেকের মুখে প্রায়ই জ্বালাপোড়া করতে দেখা যায়। মুখের এই জ্বালাপোড়া শুধু বিরক্তিকরই নয় মারাত্মক বেদনাদায়কও। মুখের জ্বালাপোড়ার কারণে খাদ্যে অরুচি, খাদ্যের স্বাদ নষ্ট হয়ে যাওয়া, মুখ শুষ্ক হয়ে যাওয়াসহ আরো নানা রকম সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে।
(ডা. আওরঙ্গজেব আরু) আমাদের দেশের অধিকাংশেরই দাঁতে কম-বেশি সমস্যা দেখা যায়। তবে দাঁতে সমস্যার ক্ষেত্রে দেখার বিষয় যে, দাঁত কিন্তু হঠাৎ করেই ক্ষতিগ্রস্ত কিংবা অসুস্হ হয়ে পড়ে না। অসচেতনতা, সঠিক পরিচর্যা না করা ও অজ্ঞতার কারণে আমরা নিজেরাই দাঁতকে সমস্যাজর্জরিত করে ফেলি।

Categories