স্বাস্থ্যকথা

কিডনী ও মূত্রসংবহনতন্ত্র

(Page 5 of 6)   « Prev  2  3  4  
5
  6  Next »

মূত্র ও জননতন্ত্রের মধ্যে মূত্রথলির ক্যান্সার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। এই রোগ মহিলাদের থেকে পুরুষদের মধ্যে বেশি দেখা যায়। এই রোগ অতিরিক্ত ধূমপায়ী, যারা রং, কিটনাশক কিংবা রাসায়নিক দ্রব্য নাড়াচাড়া করেন, নিয়মিত বেদনানাশক ঔষধ যেবন করেন, অতিরিক্ত কফি পান করেন কিংবা ওজন কমানোর জন্য চাইনিজ টি গ্রহণকারীদের মধ্যে বেশি দেখা যায়। এছাড়াও মূত্রথলির পাথর দীর্ঘদিন বা চিকিৎসায় থাকলে বা ঘনঘন সংক্রমণ প্রভৃতিকে এই রোগের কারণ হিসেবে মনে করা হয়।

ঢাকার অদুরে সাভারের চাকুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে গত ১৪ ডিসেম্বর ‘বিশ্ব কিডনি দিবস-০৮’ উপলক্ষে হয়ে গেল কিডনি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দিনব্যাপি ‘ফ্রি হেলথ ক্যাম্প’।
মুত্রনালির সংক্রমণ ও প্রদাহ বলতে সাধারণত মুত্রথলির ও মুত্রদ্বারের সংক্রমণকে বোঝায়, যা সময়মতো চিকিৎসা না করালে মুত্রনালি বা ইউরেটার এবং বৃক্ক বা কিডনির সংক্রমণ ও প্রদাহে রুপ নিতে পারে।
মিশরের আল হামরা সমাধি ক্ষেত্র থেকে উদ্ধারকৃত ৭০০০ বৎসরের পুরাতন মমির মূত্র থলিতে পাথর পাওয়া গেছে। এই মমিটাই এখন পর্যন্ত আবিস্কৃত সবচেয়ে পুরাতন পাথুরে রোগে আক্রান্ত মানুষ। সেই প্রাচীন মিশরে পাথুরে রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির উপর শল্য চিকিৎসা প্রয়োগের কোন পদ্ধতি জানা ছিল না বলে প্রতিয়মান হয়।
শিশুদের সাধারণত দুই ধরনের কিডনির রোগ বেশি হয়ে থাকে। এগুলো হচ্ছে নেফ্রোটিক সিনড্রোম ও অ্যাকিউট নেফ্রাইটিস।
শিমের বিচির মতো দেখতে আমাদের দুটি কিডনি। হাতের মুঠি যে পরিমাণ, সে পরিমাণ আয়তন এর। পিঠের মধ্যস্থলের কাছাকাছি এর অবস্থান, পাঁজরের খাঁচার ঠিক নিচে। কিডনি দুটি রক্ত পরিস্রবণ করে। কিডনি কাজ করে ছাঁকনি বা পরিস্রাবকের মতো। এই পরিস্রবণের কাজ চলে কিডনির খুব সূক্ষ্ম অসংখ্য এককের মধ্যে।
ইউটিআই বা মূত্রপথের সংক্রমণের প্রত্যেকেরই রোগের উপসর্গ থাকে না। তবে অধিকাংশ লোকের কিছু উপসর্গ বা লক্ষণ থাকে। এসব উপসর্গের মধ্যে রয়েছে ঘনঘন প্রস্রাব করার তাড়া এবং প্রস্রাব করার সময় মূত্রথলি বা মূত্রনালি এলাকায় ব্যথা ও জ্বালাপোড়া অনুভব করা। এক পর্যায়ে দেখা যায় আপনি প্রস্রাব করছেন না অথচ ক্লান্ত, বিচলিত হয়ে পড়েছেন এবং ব্যথা অনুভব করছেন।
মেয়েদের স্বাস্থ্য সমস্যার প্রধান একটি সমস্যা প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া। প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া সৃষ্টি করার প্রধান জীবাণুটি হলো ব্যাকটেরিয়া। তবে ছত্রাক এবং ভাইরাসও এ ধরনের প্রদাহ ঘটায়।
সমস্যাঃ আমার বয়স ১৬। উচ্চতা পাঁচ ফুট দুই ইঞ্চি, ওজন ৫০ কেজি। পাঁচ মাস আগে থেকে আমার কোমরের বাঁ পাশে প্রচণ্ড ব্যথা। আমি একজন কিডনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে দেখাই। চিকিৎসক আমাকে আলট্রাসনোগ্রাম ও এক্স-রে করাতে বলেন। পরীক্ষাগুলো করানোর পর দেখা গেল, আমার কিডনিতে লেফট রেনাল করটিক্যাল সিস্ট হয়েছে।
সাধারণত কিডনি রোগীদের ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত ৬টি কারণ বড় হয়ে দেখা দিতে পারে। ১. নেফ্রোটিক সিন্ড্রম (Nephrotic Syndrome), ২. তাৎক্ষণিক কিডনি অকেজো (Acute Renal Failure), ৩. ধীরগতিতে কিডনি অকেজো (Chronic Renal Failure), ৪. কিডনি সংযোজন রোগী (Renal Transplant Recipient), ৫. পাথরজনিত কিডনি রোগ ৬. অন্যান্য
(Page 5 of 6)   « Prev  2  3  4  
5
  6  Next »

Categories