স্বাস্থ্যকথা

ত্বক

(Page 2 of 3)   « Prev  1  
2
  3  Next »
কিছু কিছু চর্মরোগ আছে, যা গরম এলেই দেখা দেয় আবার শীত এলে আপনা আপনিই কমে যায়। সে রকম দু-একটি রোগ নিয়ে আজ সংক্ষিপ্ত আকারে আলোচনা করা যাক। যারা ঘামাচিতে ভোগেন তারা লক্ষ্য করে থাকবেন গরম চলে গেলে ঘামাচি চলে যায়। যারা দাদে ভোগেন তারা দেখবেন গরম কাল এলেই তা বাড়তে থাকে এবং প্রচণ্ড চুলকায়। যাদের শরীরে ছুলি হয় তারা লক্ষ্য করলে দেখবেন শীত এলে ছুলি আর দেখা যায় না। কিন্তু গরমকাল আসতে না আসতেই তা আবার ফুটে উঠতে থাকে।
পানির অপর নাম জীবন। বিশ্বব্যাপী ত্বকের যত্নে যখন নামী-দামী প্রশাধন সামগ্রীর ব্যবহার নজীরবিহীনভাবে বাড়ছে তখন বৃটিশ বিজ্ঞানীরা ত্বক সুন্দর রাখতে পানি নিয়ে একটি ভিন্নধর্মী তথ্য দিয়েছে। তারা গবেষণায় দেখেছেন শুধুমাত্র পর্যাপ্ত পানি পানের ফলে ত্বকে পানির পরিমাণ স্বাভাবিক থাকলে ত্বকের সৌন্দর্য বেড়ে যায় এবং ত্বকের ভাঁজ কমতে সাহায্য করে।
গ্রীষ্মকালে বা গরমে ত্বকের যত্ন জরুরি কারণ গ্রীষ্মকালে বা গরমে ত্বকের সবচেয়ে ক্ষতিকারক সূর্যের বেগুনি রশ্মি। এই রশ্মির প্রভাবে ত্বকের কোষগুলো মরে গিয়ে বিবর্ণ ত্বকের সৃষ্টি হয়। ত্বক বিবর্ণ হওয়া থেকে ত্বকের ক্যান্সার হতে পারে এই সূর্যালোকের জন্য। প্রথমতঃ সূর্যের বেগুনি রশ্মি হতে রক্ষা পেতে এবং ত্বককে উজ্জ্বল ও সতেজ রাখতে ছাতা বা টুপি, সানগস্নাস এবং সানস্কিন লোশন বা ক্রীম অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে। সানস্ত্রিন লোশন বা ক্রীম শুধু সূর্যের বি’ অতি বেগুনি রশ্মিকেই প্রতিহত করতে সক্ষম তাই আমাদের ত্বকের ক্ষেত্রে এসপিএফ ১৫-৩০ মধ্যে রৌদ্রে থাবার ৩০ মিনিট পূর্বে ব্যবহার করা উচিত।
গর্ভধারণ মাতৃত্বের সীমাহীন আনন্দ। এ সময় গর্ভবতী মায়ের পুষ্টি ও পরিচর্যার গুরুত্ব অনেক। গর্ভাবস্থায় ত্বক সমস্যা প্রথম প্রেগনেন্সির শেষের দিকে হতে পারে। সারা শরীরে বিশেষ করে পেট ও হাতের চুলকানি এবং লাল হয়ে যাওয়া একে পলিসরফিক ইরাপশন অব প্রেগনেন্সি বা পিউপিপি বলে।
শীতকালে ত্বক ও চুল রুক্ষ হয়ে যায়, চেহারা হারায় তার স্বাভাবিক শ্রী, তাই ত্বক ও চুলের বিশেষ যত্ন নেয়া প্রয়োজন। সঠিক ক্রিম, তেল, সাবান, শ্যাম্পুর ব্যবহার, প্রয়োজনীয় খাদ্যগ্রহণ ও জীবনযাত্রার সামান্য পরিবর্তন আনার মাধ্যমে আমরা শীতকালেও ত্বক ও চুলের সৌন্দর্য বজায় রাখতে পারব।
সব ধরনের গাঢ় ত্বকের ধরন কিন্তু একই রকম নয়। কালো ত্বক শুষ্ক বা তৈলতাক্ত যে কোনটিই হতে পারে। তাই ধরন অনুযায়ী ত্বকের যত্ন নেয়া প্রয়োজন। কালো ত্বকের জন্য সূর্যরশ্মির প্রভাব ক্ষতিকর। খুব সহজেই কালো আরো কালো বা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।
আজকাল ত্বকের যত্নের ব্যাপারে নারী-পুরুষ উভয়েই সচেতন হয়ে উঠেছেন। নানারকম ক্রিম, তেল, সাবান, ফেসওয়াশ, পাউডার ইত্যাদির বিজ্ঞাপন রেডিও, টিভি ও পত্র-পত্রিকায় সবসময়ই প্রচারিত হচ্ছে। রঙ ফর্সা করা, কালো দাগ ও ব্রণ দূর করা কোনোকিছুই যেন আজকাল আর অসম্ভব নয়।
সমস্যাঃ আমার বয়স ২২। উচ্চতা ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি, ওজন ৫৮ কেজি। বেশ কয়েক বছর আগে আমার অণ্ডকোষে বেশ কয়েকটা ছোট ছোট শক্ত গোটা অনুভব করি। ব্যথা কিংবা অন্য কোনো সমস্যা না হওয়ায় প্রথমে তেমন গুরুত্ব দিইনি। এখন এগুলো আরও বড় ও শক্ত হয়েছে। বেশ চুলকায়।
(ডা· গোবিন্দ চন্দ্র দাস) ঋতু বৈচিত্র্যের দেশ বাংলাদেশ। ঋতুর পরিবর্তনে আবহাওয়ারও পরিবর্তন হয়। আবহাওয়ার এই পরিবর্তনে আমাদের অনেকেরই স্বাস্থ্যের উপর বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। সাধারণতঃ শীতকালে আমাদের দেশে বিভিন্ন বয়সের মানুষের শীতকালীন কিছু উপসর্গ দেখা দেয়, কোল্ড এলার্জি বা শীত সংবেদনশীলতা।
(ডাঃ মোড়ল নজরুল ইসলাম) শীতকালে শুষ্ক ত্বকসহ ত্বকের নানা সমস্যা হতে পারে। এ সময় বাতাসে আদ্রতা কমে যাওয়ায় ত্বকের শুষ্কতা বাড়ে। শরীর ও মুখের ত্বক শুকিয়ে যায়। পায়ের তলা, অনেকের হাত ফেটে যেতে পারে। এছাড়া শীতকালে নানা ধরনের চর্মরোগ দেখা দিতে পারে। যেমন-চুলকানি, একজিমা, ঠোঁটের কোণায় ঘা হওয়া, মাথায় খুশকি বেড়ে যেতে পারে।
(Page 2 of 3)   « Prev  1  
2
  3  Next »

Categories