স্বাস্থ্যকথা

দাঁত ও মাড়ি

(Page 3 of 5)   « Prev  1  2  
3
  4  5  Next »
দাঁত আমাদের শরীরের খুবই গুরুত্বপুর্ণ অংশ, যা খুবই শক্ত ও মজবুত। শক্ত ও কঠিন হওয়া সত্ত্বেও আকস্মিক আঘাতে দাঁতের বিভিন্ন ক্ষতি হতে পারে। যেমন-হঠাৎ আঘাত পেয়ে দাঁত ভেঙে যেতে পারে, দাঁত টুকরো হয়ে যেতে পারে কিংবা দাঁতের গায়ে দেখা দিতে পারে ফাটল বা চিড়।
সুন্দর ফুটফুটে শিশু, সুডোল নিখুঁত মুখাবয়ব, সবার অজস্র আদর আর সপ্রশংস দৃষ্টি, এভাবেই বেড়ে উঠছিল। ৬-৭ বছর বয়সের সময় দুধ দাঁত পড়ার পর প্রথম স্থায়ী দাঁত দেখা গেল আঁকাবাঁকা হয়ে উঠছে। এ ক্ষেত্রে হয়তো বা এগিয়ে এলেন মুরব্বিরা বা আত্মীয়স্বজন। শঙ্কিত বাবা-মাকে দিলেন অভয়­ ‘না, একসময় ঠিক হয়ে যাবে’। ঠিক হয়েও যায় কিছু ক্ষেত্রে, কিন্তু বিপত্তি ঘটে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে।
আজকাল প্রায় প্রত্যেকেই ছেলে-বুড়ো, যুবক-যুবতী, বৃদ্ধ-বৃদ্ধা সবাই পার্লারে যাবার ব্যাপারে খুবই আগ্রহী; যাতে নিজেকে সুন্দর থেকে সুন্দরতম করে তোলা যায়। কিন্তু একথা একবারও খেয়াল হয় না যে, বাহ্যিক সৌন্দর্যই (শুধু মুখের মেকআপ) আসল নয়। হাসলে যদি তাতে সৌন্দর্য না থাকে, মিষ্টতা না থাকে তাতে লাভ কি? সাজগোজের সৌন্দর্যকে বাড়ানোর জন্য দাঁতের সৌন্দর্য অপরিহার্য।
ক’দিন যাবৎ লাবনী কলেজে যাচ্ছে না। তার বান্ধবীরা বাসায় ফোন করে জানতে পারল তার দাঁত ব্যাথা হচ্ছে এবং মুখ ফুলে গিয়ে খাওয়া-দাওয়া প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। মুখ খুলতে পারছে না।
‘ডাক্তার সাহের দাঁতে প্রচণ্ড ব্যথা, নাওয়া-খাওয়া আজ ৩ দিন যাবৎ বন্ধ হয়ে গেছে, একটু ফিলিং করে দেনতো।’
মহিলাদের যে সময়ে মাসিক শেষ হয়ে যায় অর্থাৎ প্রজনন ক্ষমতার অবসান ঘটে তাকেই মেনোপজ বলে। মেনোপজের বয়সসীমা সাধারণত ৪০ থেকে ৫৫ বছর। মেনাপজের সময় মহিলারা আবেগজনিত সমস্যা এবং মানসিক চাপে ভুগতে পারেন। মোট কথায় জীবনধারায় একটি পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। মেনোপজে মুখের সমস্যার অন্যতম হলো মুখে ব্যথা হতে পারে।
দাঁত আমাদের মুখাবয়বের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ ও অপরিহার্য অংশ। সুন্দর একটি হাসি যেমন একটি মুখ বা চেহারাকে দিতে পারে সার্থকতা, তেমনি এই সুন্দর হাসির সবটুকুরই অবদান সুন্দর ও সুবিন্যস্ত দাঁতের। আমাদের সর্বমোট স্হায়ী দাঁত ৩২টি। আমাদের সুশ্রী মুখায়বের আকার মুলত দাঁত ও চোয়ালই ঠিক রেখে থাকে। অর্থাৎ মুখের ভেতরের আকার এই ৩২টি দাঁত দ্বারাই সুনির্দিষ্ট। তাই কোনো কারণে যদি কোনো একটি দাঁত পড়ে যায় কিংবা ফেলে দিতে হয় তার মুখের ভেতরে দাঁতগুলো এই শুন্য জায়গার কারণে কিছুটা ফাঁক হয়ে যায়। ফলে দেখা দেয় বিভিন্ন জটিলতা।
আমাদের মাঝে অনেকেই আছেন যারা মুখের দুর্গন্ধের জন্য প্রায়ই বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েন। অফিস, বাসা, স্বামী, স্ত্রী, বন্ধু-বান্ধবের আড্ডা কোথাও মনখুলে কথা বলতে সমস্যা হয়ে দাঁড়ায় শুধু মুখের দুর্গন্ধের জন্য।
আপনার বয়স ২০ থেকে ২৫। এ সময় মাড়ির দাঁতের ওপর কালো দাগ পড়েছে। প্রচন্ড ব্যথা ও দাঁতে গর্ত হওয়া এবং ফাঁকা সমস্যা চলছে। এমতাবস্হায় আপনার করণীয় কী?
নবজাতক ও শিশুদের মুখ ও দাঁতের বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে। নবজাতকের মুখের সমস্যার কারণে তার মায়েরও সমস্যা হতে পারে।
(Page 3 of 5)   « Prev  1  2  
3
  4  5  Next »

Categories