স্বাস্থ্যকথা

দাঁত ও মাড়ি

(Page 4 of 5)   « Prev  1  2  3  
4
  5  Next »
উচ্চ রক্তচাপের কারণে শরীরের যে কোনো ক্ষতস্হান থেকেই রক্তক্ষরণের ঘটনা ঘটতে পারে। তেমনি দাঁত ও মুখের ক্ষতস্হান থেকেও ঘটতে পারে অঝোর ধারায় রক্তপাত। মুখ গহ্বরের ভেতরে মাঢ়ি অথবা দন্তমজ্জার প্রদাহের কারণে রক্তনালীর বাইরের আবরণ পাতলা হয়ে গেলে অথবা ছিঁড়ে গেলে উচ্চ রক্তপাতজনিত রক্তপাত হতে পারে।
আমরা দন্ত চিকিৎসকরা প্রায়ই একটি প্রশ্নের সম্মুখীন হই যে, দাঁত তুললে চোখের ক্ষতি হবে কিনা। এটি একেবারেই অমূলক এবং ভ্রান্ত একটি ধারণা। দাঁত প্রদাহ হলে ব্যথাটি অতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে চোখে।
ডেন্টাল ক্যারিজ মানে দাঁতের ক্ষয়রোগ, যার বিকাশ হয় অতি ধীরে ধীরে অবিরাম গতিময় ভঙ্গিতে।
ডায়াবেটিস রোগটি প্রাচীন। খ্রিষ্টপুর্ব ৪০০ বছর আগে ভারতবর্ষের চিকিৎসকরা ‘মধুমেহ’, ‘ইক্ষুমুত্রের’ উল্লেখ করেছেন। ক্যাপাডেসিয়ার এরোটিউস এ রোগের নাম দেন ডায়াবেটিস (গ্রিক শব্দ অর্থ নির্গত হওয়া)। ১০০০ খ্রি. মুসলমান চিকিৎসা বিজ্ঞানী আবিসিনা বহুমুত্র রোগের চমৎকার বর্ণনা দিয়েছেন তার গ্রন্হে। বহুমুত্র রোগের একটি প্রধান বৈশিষ্ট্য মুত্রের মিষ্ট স্বাদ।
(ডা. মোঃ ফারুক হোসেন) আমাদের দেশে রোগীরা দাঁতের ব্যথায় মুখস্ত ওষুধ কিনে খান একথা যেমন সত্য, তেমনি ওষুধ বিক্রেতারাও হরহামেশা রোগীকে ব্যথানাশক ওষুধ দিয়ে থাকেন। দাঁতের প্রচন্ড ব্যথায় এনএসএ আইডি গোত্রের ওষুধ সাধারণত দেয়া হয়ে থাকে। কিন্তু ব্যথানাশক সব ওষুধ বর্তমানে রোগীর জন্য নিরাপদ নয়।
(ডা. আওরঙ্গজেব আরু) বোতলে দুধ খাওয়ার পর অবহেলাজনিত কারণে শিশুরা এক ধরনের ডেন্টাল ক্যারিজ বা দন্ত ক্ষয়রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ে। ডেন্টাল সার্জনরা এই দন্তক্ষয় রোগকে নার্সিং বোতল ক্যারিজ বা বেবি বোতল টুথ ডিকে বলে থাকেন।
(ডা. আওরঙ্গজেব আরু) আমাদের দেশের অধিকাংশেরই দাঁতে কম-বেশি সমস্যা দেখা যায়। তবে দাঁতে সমস্যার ক্ষেত্রে দেখার বিষয় যে, দাঁত কিন্তু হঠাৎ করেই ক্ষতিগ্রস্ত কিংবা অসুস্হ হয়ে পড়ে না। অসচেতনতা, সঠিক পরিচর্যা না করা ও অজ্ঞতার কারণে আমরা নিজেরাই দাঁতকে সমস্যাজর্জরিত করে ফেলি।
আমাদের অনেকের মুখে প্রায়ই জ্বালাপোড়া করতে দেখা যায়। মুখের এই জ্বালাপোড়া শুধু বিরক্তিকরই নয় মারাত্মক বেদনাদায়কও। মুখের জ্বালাপোড়ার কারণে খাদ্যে অরুচি, খাদ্যের স্বাদ নষ্ট হয়ে যাওয়া, মুখ শুষ্ক হয়ে যাওয়াসহ আরো নানা রকম সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে।
(ডা. ফারজানা হাকিম) আক্কেল দাঁত বা উইসডম টিথ সাধারণত ১৫ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে ওঠে। এই দাঁত ওঠার সময় বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তীব্র ব্যথা অনুভুত হয়। আক্কেল দাঁত ওঠার সময় তার উপরের মাঢ়ি ফুলে যায়- ফলে তার ভেতর খাবার ঢুকে এই ব্যথার সৃষ্টি করে।)
(ডা. আলেয়া সুলতানা) শিশুকালে আমাদের মুখে অস্হায়ী দাঁত থাকে। ৬ বছর বয়স থেকে স্হায়ী দাঁতগুলো উঠতে থাকে। আমাদের মুখে ২০টি অস্হায়ী দাঁত থাকে ও ৩২টি স্হায়ী দাঁত থাকে। দাত ও মাঢ়ির বিভিন্ন রোগের কারণে দাঁত পড়ে যায়। পড়ে যাওয়া দাঁতগুলো কৃত্রিমভাবে বাঁধানোর কাজটি প্রস্হডনটিষ্টরা করে থাকেন।
(Page 4 of 5)   « Prev  1  2  3  
4
  5  Next »

Categories