স্বাস্থ্যকথা

পুরুষের স্বাস্থ্য

(Page 4 of 5)   « Prev  1  2  3  
4
  5  Next »
রসুন, পেঁয়াজ এবং অন্যান্য ঝাঁঝালো সবজি অনেক ক্ষেত্রেই বেশ উপকারী। ক্যাসার গবেষকদের মতে রসুন ও পেঁয়াজ নিয়মিত খেলে পুরুষরা প্রষ্টেট ক্যাসারের হাত থেকে রেহাই পেতে পারে। চীন দেশের গবেষকরা এ ব্যাপারে আরো উচ্চকিত। তারা বলেন, যারা প্রত্যহ ১০ গ্রামের অধিক পরিমাণে রসুন, পেঁয়াজ বা অন্যান্য ঝাঁঝালো স্বাদের সবজি খেয়ে আসছেন, তাদের প্রষ্টেট ক্যাসার হওয়ার ঝুঁকি যারা প্রত্যহ ২.২ গ্রামের কম খাচ্ছেন তাদের অর্ধেক (৫০%)।
প্রস্টেট পুরুষদের ইন্টারনাল অর্গানের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। এটা না থাকলে মানুষের জীবন শুধু ঝুঁকিপূর্ণ হয় তাই নয়, পুরুষের সুখময় দাম্পত্য জীবনে প্রোষ্টেট-এর রয়েছে এক অনবদ্য ভূমিকা। এই প্রস্টেট- এর নানা সমস্যা, নানা রোগ রয়েছে। বিশেষকরে চল্লিশোর্ধ পুরুষের বছরে অন্ততঃ একবার অন্যান্য স্বাস্থ্য পরীক্ষার পাশাপাশি প্রস্টেট-পরীক্ষা করানো উচিত।
হারনিয়া অতি কমন একটি রোগ। জন্ম থেকে শুরু করে বৃদ্ধ বয়স পর্যন্ত যে কারো এই রোগ হতে পারে। আসলে হারনিয়া একটি সার্জিক্যাল রোগ অর্থাৎ অপারেশন ছাড়া এ রোগ ভালো হবার নয়। সাধারণভাবে হারনিয়া হলো পেটের মধ্যস্থ খাদ্যনালী বা অন্য যে কোনো অঙ্গ পেটের দুর্বল স্থান দিয়ে বাইরে চলে আসাকে বুঝায়।
বিষণ্নতা একপ্রকার মানসিক রোগ। এই মানসিক রোগে ব্যক্তি মানসিক কষ্টের পাশাপাশি বিভিন্ন শারীরিক কষ্টেরও সম্মুখীন হতে পারেন। বিষণ্ন এমন এক রোগ যা ব্যক্তিকে মারাত্মকভাবে আক্রমণ করে। ফলে ব্যক্তি ভেঙে পড়ে, অসুস্থ হয়ে যায়। বিষণ্নতা মানব দেহের সব অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের কাজকর্মে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে।
পুরুষের যখন বীর্যপাত ঘটে স্বাভাবিকভাবে সেটা মূত্রনালী দিয়ে বাইরে বেরিয়ে আসে; কিন্তু সেটা না হয়ে বীর্য যদি পেছনের দিক দিয়ে মূত্রথলিতে চলে যায় তাহলে তাকে রেট্রোগ্রেড ইজাকুলেশন বলে।
ইনগুইনাল হার্নিয়া হলো তলপেটের ডান কিংবা বাম দিকে ইনগুইনাল অর্থাৎ কুঁচকির কাছের অংশে হার্নিয়া। হার্নিয়া কথাটির প্রকৃত অর্থ উদর গহ্বরের দেয়ালের কোন দুর্বল অংশ দিয়ে অভ্যন্তরস্থ যে কোন অঙ্গ যেমন অন্ত্র কিংবা অন্ত্রের অংশবিশেষ বাইরে বেরিয়ে আসা কিংবা বেরিয়ে আসার প্রবণতা। অবস্থান অনুযায়ী হার্নিয়াকে বিভিন্ন নামে নামকরণ করা হয়।
প্রোস্টেট হচ্ছে একটা ছোট গ্রন্থি যা পুরুষদের থাকে। এটি অবস্থিত মূত্রথলির ঠিক নিচে। প্রোস্টেট ঘিরে রাখে প্রস্রাবের পথ বা মূত্রনালিকে। সাধারণত এটির আকৃতি প্রায় একটা আখরোটের মতো। যদিও সব পুরুষেরই প্রোস্টেট থাকে, তবে মধ্য বয়সে এটা সাধারণত বড় হতে শুরু করে।
প্রোস্টেটাইটিসের অর্থ হলো প্রোস্টেটগ্রন্থির প্রদাহ। এটি একমাত্র পুরুষদেরই থাকে, যার কাজ হলো প্রোস্টেট রস নিঃসৃত করা। কোনো অবস্থায় যদি এ রসের উপাদানে পরিবর্তন ঘটে কিংবা এর ক্ষরণ প্রতিহত হয় তাহলে পুরুষের বন্ধ্যাত্ব ঘটতে পারে।
(Page 4 of 5)   « Prev  1  2  3  
4
  5  Next »

Categories