স্বাস্থ্যকথা

মুখ ও জিহবা

(Page 2 of 2)   « Prev  1  
2
  
Next »
উচ্চ রক্তচাপের কারণে শরীরের যে কোনো ক্ষতস্হান থেকেই রক্তক্ষরণের ঘটনা ঘটতে পারে। তেমনি দাঁত ও মুখের ক্ষতস্হান থেকেও ঘটতে পারে অঝোর ধারায় রক্তপাত। মুখ গহ্বরের ভেতরে মাঢ়ি অথবা দন্তমজ্জার প্রদাহের কারণে রক্তনালীর বাইরের আবরণ পাতলা হয়ে গেলে অথবা ছিঁড়ে গেলে উচ্চ রক্তপাতজনিত রক্তপাত হতে পারে।
মুখে ও ঠোঁটে বিভিন্ন ধরনের ভাইরাসের সংক্রমণ হতে পারে। আলোচ্য বিষয়ে হারপিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস এবং হারপিস জসটার ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে আলোকপাত করা হলো। হারপিস এক ধরনের ডিএনএ ভাইরাস, যা প্রধানত লাল এবং শরীরের অন্যান্য নিঃসৃত রসের মাধ্যমে সঞ্চালিত হয়ে থাকে। হারপিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে। (ক) হারপিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস টাইপ-১ (খ) হারপিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস টাইপ-২।
যৌবনের একটি অবাঞ্ছিত সমস্যার নাম হচ্ছে ব্রণ। সুন্দর মুখশ্রীর উপর ব্রণ যদি জাপটে ধরে তাহলে ছেলে হোক বা মেয়েই-কারোই মনে যন্ত্রণার কমতি থাকে না। কোন বয়সে বেশি হয়ঃ ১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সে এটি বেশি হয়। তবে ২০ থেকে ৩০ বছর বয়স পর্যন্ত এটি হতে দেখা যায়। তবে টিনএজদের মধ্যে শতকরা নব্বই ভাগ ক্ষেত্রেই কম অথবা বেশি পরিমাণে এটি হয়ে থাকে। ২০ বছর বয়সের পর থেকে এটি কমতে থাকে।
ডায়াবেটিস রোগটি প্রাচীন। খ্রিষ্টপুর্ব ৪০০ বছর আগে ভারতবর্ষের চিকিৎসকরা ‘মধুমেহ’, ‘ইক্ষুমুত্রের’ উল্লেখ করেছেন। ক্যাপাডেসিয়ার এরোটিউস এ রোগের নাম দেন ডায়াবেটিস (গ্রিক শব্দ অর্থ নির্গত হওয়া)। ১০০০ খ্রি. মুসলমান চিকিৎসা বিজ্ঞানী আবিসিনা বহুমুত্র রোগের চমৎকার বর্ণনা দিয়েছেন তার গ্রন্হে। বহুমুত্র রোগের একটি প্রধান বৈশিষ্ট্য মুত্রের মিষ্ট স্বাদ।
শীতের সময় ঠান্ডায় আক্রান্ত হওয়া অঙ্গগুলোর মধ্যে টনসিল অন্যতম। টনসিল জিভের শেকড়ের শেষ প্রান্ত ও আলা জিভের দুই পাশে অবস্থিত। এ অঙ্গটি প্রায় গোলাকার, মাংসপিণ্ড দ্বারা তৈরি। দেখতে কাঠবাদামের মতো।

(ডাঃ মোড়ল নজরুল ইসলাম) আজকাল মহিলাদের পাশাপাশি পুরুষরাও সাংঘাতিক রকম ত্বক সচেতন। মুখে কোন ব্রাউন স্পটরা বাদামী স্পট, মেছতা, চোখের নীচে কালি, ব্রণ, তিল, আঁচিল, মোল এসব থেকে একেবারে মুক্ত থাকা চাই। কিন্তু এসবের চিকিৎসা ক্ষেত্রে রোগীরা প্রায়শই প্রতারণার শিকার হচ্ছে।

(ডা. দিদারুল আহসান) সৌন্দর্যপিপাসু সুন্দরী ললনাদের ক্ষেত্রে মুখের দাগ তাদের হতাশার অন্যতম একটি কারণ। এ ক্ষেত্রে তারা অবিরাম ছুটে চলেন ডাক্তারের পর ডাক্তারের কাছে। খরচে থাকে না তাদের কোনো বাধা, শুধু চাওয়া­ এ অবস্খা থেকে মুক্তি। কিন্তু সব সময় তা সফল না হওয়ায় বাড়তে থাকে তাদের হতাশা। তবে এ ক্ষেত্রে তাদের মুক্তি দেয়া বর্তমানে আর অসম্ভব নয়।
(ডা. মোঃ ফারুক হোসেন) মানবদেহে রক্তে যখন হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ স্বাভাবিকের চেয়ে কমে যায় তখন এ অবস্হাকে এনিমিয়া বা রক্তশুন্যতা বলে। রক্তশুন্যতার কারণে মুখের বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়।
(ডা· মুজাহিদুল ইসলাম) অনেকে হাসেন খুব সুন্দর করে। হাসেন প্রাণ খুলেও। কিন্তু তার নিঃশ্বাসে আবার অনেকের প্রাণ যায় যায়, মানে দুর্গন্ধ বের হয়। লক্ষ্য করে দেখবেন, ব্যক্তি জীবনে আপনি এ রকম মানুষের মুখোমুখি নিশ্চয়ই হয়েছেন। এ রকম পরিস্থিতিতে না সহ্য করা যায়, না লোকটিকে বলা যায়।
(Page 2 of 2)   « Prev  1  
2
  
Next »

Categories