স্বাস্থ্যকথা

এইডস

এইড্‌স (AIDS) একটি মারণব্যাধি। আজ পর্যন্ত এইড্‌স রোগের কোনো ভ্যাকসিন বা আরোগ্যকারী ঔষধ আবিষ্কৃত হয়নি। সতর্কতা এবং প্রতিরোধই এইড্‌স রোগ নিয়ন্ত্রণের একমাত্র উপায়।

দুধের এইডস নিরোধক ভূমিকা

জীবনের প্রথম পুষ্টি দুধ। আদর্শ খাদ্য হিসেবে দুধ সর্বজনস্বীকৃত। সম্প্রতি দুধের আরেকটি নতুন গুণের কথা আবিস্কৃত হয়েছে। দুধ এইডসের ভাইরাসের বিরুদ্ধে কাজ করে। শুধু এইডসের ভাইরাসই নয়- গনোরিয়া, ক্ল্যামাইডিয়া ইত্যাদি ব্যাক্টেরিয়ার বিরুদ্ধেও কাজ করে। গবেষকরা বলেন, দুধে আছে ‘মনোক্যাপ্রিন’ নামের এক বিশেষ উপাদান যার জীবাণুনাশক ক্ষমতা আছে। এটি দুধের ‘ফ্যাট’ বা স্নেহধর্মী অংশে থাকে। পাওয়া যায় মায়ের দুধ ও গরুর দুধ দুটোতেই। নারকেলেও ‘মনোক্যাপ্রিন’ পাওয়া যায়। গবেষকরা মনোক্যাপ্রিনকে প্রক্রিয়াজাত করে ওষুধ বানাতে চেষ্টা করেছেন। মার্কিন গবেষক হ্যালডর থশ্যার কিছু জীবজন্তুর উপর এটি নিয়ে পরীক্ষা চালাচ্ছেন। সফল হলে আশা করা যায়, গোটা মানব জাতিই উপকৃত হবে। ************************** দৈনিক ইত্তেফাক, ৭ নভেম্বর ২০০৯।
এইডস (AIDS) শব্দের অর্থ অ্যাকিউরড ইমিউন ডেফিসিয়েন্সি সিনড্রোম। এইডস হলে রোগীর দেহে প্রতিরোধ ব্যবস্থা এত দুর্বল হয়ে যায় যে সাধারণ সংক্রমণের সঙ্গেও তা লড়াই করতে পারে না। সেই ১৯৮০ সালের দিকে এইডস প্রথম শনাক্ত হয়েছিল। এর পর থেকে পৃথিবীজুড়ে অনেক অনেক মানুষ এ রোগে আক্রান্ত হয়েছে।
ইমিউন সিস্টেম বুস্টার এইচআইভি প্রোটিয়েজ ইনহিবিটর হচ্ছে একটি নতুন শ্রেণীর এইডস ড্রাগ। এটি বর্তমানে এন্টিভাইরাল ড্রাগ যেমন এজেডটি বা ডিডিসি’র সাথে ব্যবহারের জন্য ইউএস ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের অনুমোদন লাভ করেছে। গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব এইডস রোগীকে স্যাকুইনাভির কম্বিনেশন থেরাপির সাথে দেয়া হয়েছে তাদের ইমিউন-সিস্টেমের উন্নতি হয়েছে।
এইডস (একুয়ার্ড ইমিউনো ডেফিসিয়েনসি সিনড্রোম) রোগের জীবাণুর নাম এইচআইভি (হিউম্যান ইমিউনো ডেফিসিয়েনসি ভাইরাস)। এইচআইভি আক্রান্ত ব্যক্তি আনেক দিন সুস্থ থাকতে পারে। এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে ধীরে ধীরে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা হ্রাসের কারণে ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয় এবং মৃত্যুই তার জীবনের সর্বশেষ পরিণতি হয়ে থাকে।

 (মোহাম্মদ তরিকুল ইসলাম ) 
 
সোনাপুর গ্রামের মেয়ে সুখী। বাবা মেয়েকে বিয়ে দেন এক প্রবাসী ছেলের সঙ্গে। সুখীর বাবা ভাবতেন বিদেশি জামাই, সংসারে টাকা-পয়সার অভাব হবে না। মেয়ে বেশ সুখেই থাকবে। ভালোভাবেই বিয়ের আয়োজন শেষ হলো। নতুন সংসারে খুশি সুখীও। ছুটি শেষ হয়ে যাওয়ায় বিয়ের দুই মাসের মধ্যে বিজয় তার কর্মক্ষেত্রে ফিরে গেল। বিদেশে আসার পর বিজয় খুব একাকিত্বে ভুগতে শুরু করে।

(ডা. ওয়ানাইজা) মরণব্যাধি এইডস প্রতিরোধে খাতনা কার্যকর ভুমিকা রাখতে পারে। সদ্যসমাপ্ত টরেন্টো বিশ্ব এইডস সম্মেলনে বিশেষজ্ঞরা এই মতামত জানিয়েছেন। আফ্রিকার যেসব দেশে খাতনার হার বেশি সেসব দেশে এইডসের হার তুলনামুলক কম।
(ডা. শাহজাদা সেলিম ) পৃথিবীতে এইডসের জীবাণু বহনকারী লোকের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ধারণা করা হচ্ছে পৃথিবীর চার কোটির বেশি মানুষ এইডসের জীবাণু বহন করছে। রাষ্ট্রসংঘের এইডসবিষয়ক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে যে, বিশ্বে প্রায় ৪ কোটি ৩ লাখ লোক এইচআইভি ধারণ করছে তাদের দেহে।
(ডা· শুভাগত চৌধুরী) এইডস রোগের মূলে রয়েছে এইচআইভি সংক্রমণ। এটি যে এখনো পৃথিবীতে রয়েছে, এ জন্য যে আমাদের অনেক কিছু করার আছে-সেসব বিষয় স্মরণ করিয়ে দেওয়াও দিবসটি পালনের অন্যতম উদ্দেশ্য।

Categories