স্বাস্থ্যকথা

হেলথ টিপস

(Page 2 of 12)   « Prev  1  
2
  3  4  5  Next »
ডাক্তারের পরামর্শ ব্যাতিত অনিয়মতান্ত্রিক ওষুধ ব্যবহার চোখের অন্ধত্বের কারণ হতে পারে? কিভাবে সর্তক হবেনঃ

কম আলোয় পড়া ক্ষতিকর

কম আলো ও বেশি আলোয় দেখার জন্য চোখের স্নায়ুকোষ আছে। এদের নাম রড কোষ ও কোন কোষ। একেবারে আলোহীন অবস্থায় কিছু দেখা যায় না। কম আলোয় বা আধো অন্ধকারে রেটিনার রড কোষগুলি আমাদের দেখার কাজে সাহায্য করে। তবে সাধারণ দেখা আর পড়ার দেখার মধ্যে পার্থক্য আছে। পড়ার সময় অক্ষরের চেহারাগুলি স্পষ্ট হওয়া দরকার। কোনো জিনিসকে ভালো ভাবে দেখার জন্যও এটা প্রয়োজন। যা দেখছি বা পড়ছি তার সীমারেখা খুব পরিষ্ড়্গার হওয়া নির্ভর করে আলোর উপর। আর আলো কম হলে চোখ ‘একোমোডেশান’ নামে চোখের এক বিশেষ ক্ষমতাকে কাজে লাগায়। কম আলোয় পড়লে রেটিনার রড কোষ কাজ করলেই হবে না, প্রয়োজন হবে বেশি একোমোডেশানের। বেশি দিন একটানা একোমোডেশানের উপর বেশি চাপ পড়লে চোখের স্থায়ী ক্ষতি হয়ে যায়। তাই কম আলোয় বেশি দিন পড়া উচিত নয়।

**************************
দৈনিক ইত্তেফাক, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১০।
আজকাল বিভিন্ন নামে এনাজি ড্রিংক (ঊহবৎমু ফৎরহশ) নামে এক ধরনের পানীয় বাজারজাত হতে দেখা যায়। বড়রা তো বটেই, ছোটরাও এগুলি পানের জন্য খুব উৎসাহী। এসব পানীয় কি ওদের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো?
সকলে চায় সারাদিনের ক্লান্তি শেষে রাতে ভালো ঘুম হউক। আর অনেকে ঘুমের জন্য কতনা যুদ্ধ করেন। শেষ পর্যন্ত অনেককে ঘুমের ওষুধ পর্যন্ত সেবন করতে হয়। তবে ভালো ঘুমের জন্য যা জানা দরকারঃ
বছর শুরু গ্রীষ্মকালে। গ্রীষ্মের দাবদাহে প্রচন্ড গরমে ঝরঝরে ঘাম, রাজ্যের পিপাসা, পানিশূণ্যতা, হিট স্ট্রোক, শারীরিক দুর্বলতা, ক্ষুধামন্দা, ঘামাচি, গরম থেকে ঠান্ডা লাগা, খাদ্যে বিষক্রিয়া- কত সমস্যা হতে পারে মানুষের শরীরে! একটু সতর্ক থেকে বছর শুরুর এই ঋতুতে সুস্থ থাকুন।
আমাদের শরীরের শতকরা ৬০ থেকে ৭০ ভাগই পানি। পানি আমাদের শরীরের একটি অপরিহার্য উপাদান। পানি যদিও আমাদেরকে বিশেষ কোন পুষ্টি বা ক্যালরি দেয় না, তবুও এটি খাবারের একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। সব খাবার থেকে পুষ্টি পেতে পানি প্রয়োজন। পানি ছাড়া আমাদের জীবন অচল। কিন্তু শরীর অতিরিক্ত পানি ধরে রাখতে পারে না। প্রয়োজনের অতিরিক্ত পানি প্রশ্রাব বা ঘামের মাধ্যমে শরীর থেকে বের হয়ে যায়। শরীরের পানির প্রয়োজনের যোগান দিতে প্রতিদিন তাই পর্যাপ্ত পানি পান করা উচিৎ।

হেলথ টিপসঃ ঠোঁট সুন্দর করুন

ঠোঁটের চমক বাড়াতে চান। কিছু না এর জন্য আপনাকে কোনো বিশেষ ঝুঁকি নিতে হবে না। যা করবেন : গোলাপের পাপড়ি পিষে এর মধ্যে গ্লিসারিন মিশিয়ে নিন। তা প্রতিদিন ঠোঁটে লাগান। আপনার ঠোঁটের চমক এমনিতেই বেড়ে যাবে। গোলাপের মতো উজ্জ্বল হবে আপনার ঠোঁট। আবার আঙুরের রসও লাগাতে পারেন। এতে ঠোঁট ফাটবে না। ঠোঁট গোলাপি করতে হলে গোলাপের পাপড়ির রসের মধ্যে তুলসী পাতার রস মিশিয়েও লাগাতে পারেন। কয়েক সপ্তাহেই আপনার ঠোঁট গোলাপি হয়ে যাবে।

*************************
দৈনিক আমার দেশ, ২০ এপ্রিল ২০১০।
অধিকাংশ ইনফেকশনজনিত রোগের ক্ষেত্রেই জ্বর হচ্ছে অন্যতম উপসর্গ। অনেকেরই হয়তো জানা আছে জ্বর কোনো রোগ নয়, জ্বর হচ্ছে রোগের একটি উপসর্গ। এই জ্বর নিয়ে ভুল ধারণা অনেক।
একেবারে ফিট থাকতে গেলে কিছু নিয়ম-কানুন মেনে চলতে হবে। সুস্থ শরীর তার সঙ্গে শান্তিময় জীবন লাভ করতে কে না চায়। কিন্তু বিশৃঙ্খলার আড়ালে জীবনটাই এলোমেলো হয়ে যায়। থাকে না শান্তি, থাকে না স্ব্বস্তি। সুস্থ থাকার কিছু সূত্র আছে। সেগুলো কী তা জেনে নিই।
চিকিত্সার প্রয়োজনে অস্ত্রোপচারের কথা বললেই শতভাগ ব্যক্তির মনে এক আশঙ্কা ও ভয়ের আগমন ঘটে। প্রথমে অনুরোধ আসে, ওষুধে ভালো হবে না? পরের কথা, আর কদিন ওষুধ খেয়ে দেখি? অর্থাত্ সানন্দে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে চিকিত্সা নেওয়ার মানসিকতা কারোরই নেই।
(Page 2 of 12)   « Prev  1  
2
  3  4  5  Next »

Categories